বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সৈকতে প্রসূতি পর্যটকদের জন্য ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার চালু

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৪৪

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে ভ্রমণে আসা প্রসূতিদের জন্য ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার (মাতৃদুগ্ধ পানের স্থান) চালু করেছে ট্যুরিস্ট পুলিশ। বাচ্চা নিয়ে আসা মায়েদের সৈকত উপভোগ নিশ্চিত করতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম। শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সৈকতের কলাতলী পয়েন্টে এ ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার উদ্বোধন করা হয়।

রেজাউল করিম বলেন, ‘কক্সবাজার সৈকত পরিদর্শনে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে লাখো পর্যটক আসেন। পর্যটকদের অধিকাংশ পরিবার নিয়ে ঘুরতে আসেন। তাদের মাঝে অনেকের দুগ্ধপোষ্য শিশু থাকে। বালিয়াড়িতে হাঁটতে কিংবা সমুদ্র দর্শনকালে শিশুদের বুকের দুধ খাওয়ানোর প্রয়োজন পড়লে বিচে কোনো জায়গা পাওয়া যায় না। এতে খুবই বিড়ম্বনায় পড়েন প্রসূতিরা। এ প্রয়োজনীয়তা অনুভবে ব্রেস্ট ফিডিং সেন্টার চালু করা হয়েছে। এখন শিশুদের নিয়ে বিচে এসে প্রসূতিরা ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার ব্যবহার করতে পারবেন।’

চট্টগ্রামের রাউজান থেকে বেড়াতে এসে বিকালে ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার ব্যবহার করা ৮ মাস বয়সী শিশুর মা আফরোজা জামান বলেন, ‘কক্সবাজার আকর্ষণীয় একটি পর্যটন এলাকা। লাখ লাখ পর্যটক যেহেতু এখানে আসেন, সেহেতু নানা ধরনের সুযোগ সৈকতে থাকার কথা ছিল। বিচ ম্যানেজমেন্ট কমিটি এ বিষয়ে মনোযোগ দেয়নি বলে মনে হয়। দীর্ঘদিন পরে হলেও টুরিস্ট পুলিশের এ উদ্যোগটি প্রশংসার দাবি রাখে। জনসমাগমস্থলে দুধ পান করানো নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার প্রসূতি পর্যটকদের স্বস্তি দেবে।’

উপস্থিত পর্যটকরা বলেন, যেহেতু সৈকতে একাধিক পয়েন্টে পর্যটক উপস্থিতি রয়েছে, সেহেতু প্রতিটি পয়েন্টে ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার স্থাপন করা দরকার। লাবণী, সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে এত দূরে এসে সন্তানদের ব্রেস্ট ফিডিং করা কষ্টকর হবে।’

এসময় অতিথি হিসেবে ছিলেন কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল ইসলাম, কিটকট ব্যবসায়ী সভাপতি মাহবুবর রহমান, হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুকিম খানসহ বিচ কেন্দ্রিক ব্যবসায়ীরা। পরে ফিতা কেটে সেন্টারটি শুভ উদ্বোধন করেন অতিথিরা।

ইত্তেফাক/এইচএম