সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

পুতিনকে বাইডেনের হুঁশিয়ারি

‘ইউক্রেনে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করলে পৃথিবীর চেহারা পালটে যাবে’

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:০২

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইউক্রেনের যুদ্ধে রাসায়নিক কিংবা ট্যাকটিক্যাল পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার না করতে রাশিয়াকে সতর্ক করে দিয়েছেন। সিবিএস নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, এ ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হলে যুদ্ধের চেহারা এমনভাবে বদলে যাবে যা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর কখনো দেখা যায়নি। তবে এ ধরনের অস্ত্র ব্যবহারের জবাবে যুক্তরাষ্ট্র কী ধরনের ব্যবস্থা নেবে সে বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট কিছু বলেননি। এর প্রতিক্রিয়ায় রুশ সচিবালয় ক্রেমলিন জানিয়েছে, ইউক্রেনে কখনো গণবিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করবে না রাশিয়া।

সিবিএসের ৬০ মিনিট অনুষ্ঠানের জন্য জো বাইডেন হোয়াইট হাউজে সাক্ষাৎকারটি দিয়েছেন। এসময় তার কাছে জানতে চাওয়া হয় ইউক্রেনের যুদ্ধে প্রেসিডেন্ট পুতিন যদি গণবিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করার কথা বিবেচনা করে থাকেন তাহলে এ বিষয়ে তিনি তাকে কী বলবেন। ‘করবেন না, করবেন না, করবেন না,’ এভাবেই জবাব দেন জো বাইডেন।

এরপর বাইডেনের কাছে জানতে চাওয়া হয়, পুতিন যদি সেই সীমারেখা অতিক্রম করেন তাহলে তার জন্য এর পরিণতি কী হতে পারে? জবাবে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, ‘আপনি কি মনে করেন যে এটা যদি আমি সত্যি সত্যি জানি তাহলে সেটা আমি আপনাকে বলব? আমি সেটা আপনাকে বলব না। তবে এর পরিণতি তো আছেই।’ তিনি বলেন, ‘তারা (রাশিয়া) বিশ্বের কাছ থেকে আরো বেশি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে, যা তারা এর আগে কখনো হয়নি। এবং তারা কী করে তার ওপরেই নির্ভর করে এর জবাবে কী ঘটবে।’ সামরিক বিশ্লেষকরা বলছেন, ক্রেমলিন যেভাবে আশা করেছিল ইউক্রেনের যুদ্ধ সেভাবে অগ্রসর হয়নি। সম্প্রতি ইউক্রেন দাবি করেছে যে তারা রুশ বাহিনীর কাছ থেকে উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় খারকিভের ৮ হাজার বর্গকিলোমিটারের বেশি এলাকা পুনর্দখল করেছে। তার পরেও প্রেসিডেন্ট পুতিন ইঙ্গিত দিয়েছেন যে ইউক্রেনীয় বাহিনীর পালটা আক্রমণের সাফল্য দেশটির পূর্বাঞ্চলে রাশিয়ার সামরিক অভিযানের পরিকল্পনাকে থামাতে পারবে না।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রুশ সামরিক অভিযান শুরু হওয়ার পর রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তার দেশের পরমাণু শক্তিকে বিশেষ সতর্কাবস্থায় রাখার কথা ঘোষণা করেছিলেন। রুশ প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রধানদের তিনি বলেছিলেন পশ্চিমা বিশ্বের আগ্রাসী মনোভাবের কারণে তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সমপ্রতি রুশ সামরিক বাহিনীর নিয়ন্ত্রণ থেকে ইউক্রেনের কিছু এলাকা হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার পর পশ্চিমা দেশগুলোতে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে যে প্রেসিডেন্ট পুতিন হয়তো এখন আরো কট্টর কৌশল গ্রহণ করতে পারেন। প্রায় ৮০ বছর ধরে বিশ্বে পরমাণু অস্ত্র রয়েছে। অনেক দেশই এই অস্ত্রকে তাদের জাতীয় নিরাপত্তার রক্ষাকবচ হিসেবে মনে করে।

  • রাশিয়ার প্রতিক্রিয়া

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের হুঁশিয়ারির প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে রাশিয়া। শনিবার রুশ প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ক্রেমলিন জানিয়েছে, ইউক্রেনে গণবিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করবে না রাশিয়া। মার্কিন প্রেসিডেন্টের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, ‘আমাদের পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের পরিকল্পনাগুলো পড়ুন। যেখানে সব লেখা আছে।’ —বিবিসি

 

ইত্তেফাক/ইআ