বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

রানির শেষকৃত্যানুষ্ঠানে ব্রিটেনে আজ যা যা ঘটতে পারে

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:০৭

সাত দশকেরও বেশি সময় ব্রিটিশ সিংহাসনে আসীন থাকার পর গত ৮ সেপ্টম্বরে ৯৬ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। আজ সোমবার ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া দেশটির স্থানীয় ১১ টা থেকে রানির শুরু হবে। এলিজাবেথের শেষকৃত্যানুষ্ঠানে আজ লন্ডন এবং উইন্ডসরে বেশ কিছু রীতি অনুসরণ করা হবে। 

দেশটিতে এই নিয়ে আজ সেখানে যা যা ঘটতে পারে: এখানে যুক্তরাজ্যের স্থানীয় সময় উল্লেখ করা হচ্ছে। এখানে আরও পাঁচ ঘণ্টা যোগ করে বাংলাদেশের সময় নির্ণয় করতে হবে।

ভোর ৬.৩০: ওয়েস্টমিনস্টার হলে শায়িত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে জনসাধারণের সশরীরে গিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময়সীমা শেষ হয়েছে। এই সময় থেকে ওয়েস্টমিনিস্টার হলের দরজা জনতার জন্য বন্ধ হয়েছে।

সকাল ৮.০০: দুই হাজারের বেশি অতিথির জন্য ওয়েস্টমিনস্টার হলের দরজা খুলে দেওয়া হবে, যেখানে জাপানের সম্রাট, বিশ্ব নেতাদের পাশাপাশি অনেক দাতব্য প্রতিষ্ঠানের সদস্যরা অংশ নেবেন।

সকাল ১০.৪৪: দিনের প্রথম শোকযাত্রা শুরু হবে। স্টেট গান ক্যারেজের নাবিকরা রানির কফিন নিয়ে ওয়েস্টমিনস্টার হল থেকে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে যাত্রা করবেন। তাদের পেছনে থাকবেন রাজা চার্লস এবং রাজপরিবারের অন্য জ্যেষ্ঠ সদস্যরা।

সকাল ১১.০০: রাষ্ট্রীয় শেষকৃত্যানুষ্ঠান শুরু হবে। 

বেলা ১১.৫৫: শেষ পোস্ট বিউগল বাজানো হবে, এরপর পুরো দেশজুড়ে দুই মিনিট নীরবতা পালন করা হবে।

দুপুর ১২.০০: এখানকার অনুষ্ঠানপর্ব শেষ হওয়ার পর বড় আকারের একটি মিছিল সঙ্গে নিয়ে রানির কফিন ওয়েলিংটন আর্চের উদ্দেশে রওনা করা হবে।

দুপুর ১.০০: রানির কফিন রাষ্ট্রীয় শবযানে স্থানান্তর করা হবে। এরপর এমন একটি যাত্রাপথে উইন্ডসরে কফিন নিয়ে যাওয়া হবে, যার দুপাশে জনসাধারণ দাঁড়ানোর সুযোগ পাবেন।

দুপুর ৩.০০: উইন্ডসর ক্যাসেল থেকে সেন্ট জর্জ চ্যাপেলের উদ্দেশ্যে দিনের তৃতীয় শোকযাত্রা শুরু হবে।

বিকাল ৪.০০: সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে যেখানে সমাহিত করা হবে, তার পাশে সমাহিত করার পূর্বের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে।

সন্ধ্যা ৭.৩০: রাজপরিবারের সদস্যরা চ্যাপেলে ফিরে আসবেন, যেখানে পারিবারিক দাফন ক্রিয়াকর্মের মধ্যে দিয়ে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে তার স্বামী প্রয়াত ডিউক অব এডিনবরার পাশে সমাহিত করা হবে। 

ইত্তেফাক/এসআর