শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

যুদ্ধে যেতে ২৪ ঘণ্টায় হাজির ১০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক: রাশিয়া 

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩:৩০

রুশ সামরিক বাহিনী বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, কমপক্ষে ১০ হাজার মানুষ স্বেচ্ছায় ইউক্রেন যুদ্ধে অংশগ্রহণ করতে এসেছেন। প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন রিজার্ভ সৈন্য পাঠানোর নির্দেশ দেওয়ার পর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এসব মানুষ সেখানে পৌঁছেছেন। খবর এএফপি’র।

রুশ সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ভ্লাদিমির তিমলিয়ানস্কি রাশিয়ার বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্সকে বলেন, ‘আংশিক সৈন্য পাঠানোর প্রথম দিন চলাকালে ডাকার অপেক্ষায় না থেকে এসব মানুষ নিজ দায়িত্বে নিয়োগ দপ্তরে পৌঁছান।’

তিনি আরও বলেন, লোক নেওয়ার ব্যাপারে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রশ্নের উত্তর দিতে সামরিক বাহিনী কল সেন্টার চালু করেছে।

পুতিনের ঘোষণার পর থেকে রাশিয়ার হাজারো নাগরিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়ে সামরিক বাহিনীর ডাকে সাড়া দেওয়ার আগ্রহ ব্যক্ত করেন। তবে এসব পোস্ট এএফপি স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারেনি। 

অন্যদিকে পুতিনের রিজার্ভ সৈন্য পাঠানোর নির্দেশের পর রাশিয়া ছেড়ে পালানোর বহু মানুষের হিড়িক পড়েছে বলে খবর বেরিয়েছে। বিবিসি বলছে, দেশত্যাগের জন্য রাশিয়ার সীমান্তে দীর্ঘ সারি তৈরি হয়েছে। তবে ক্রেমলিন বলছে, যুদ্ধ করতে সক্ষম ব্যক্তিরা দেশ ত্যাগ করছে বলে যেসব খবরা-খবর প্রকাশিত হচ্ছে সেগুলো অতিরঞ্জিত করা হচ্ছে।

কিন্তু রাশিয়ার সঙ্গে জর্জিয়ার সীমান্তে দেখা যায় গাড়ির সারি কয়েক মাইল পর্যন্ত দীর্ঘ হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বিবিসিকে বলেছেন, প্রেসিডেন্ট পুতিনের ঘোষণা পরপরই তিনি শুধু পাসপোর্ট সঙ্গে নিয়ে দ্রুত বাড়ি থেকে বেরিয়ে বর্ডারের দিকে রওনা দেন।

তিনি কোন জামা-কাপড়ও নেননি। সে ব্যক্তি আশংকা করছেন, রিজার্ভ সৈন্য হিসেবে যাদের যুদ্ধে পাঠানো হবে তিনি সে দলে পড়ে যেতে পারেন। কিছু প্রত্যক্ষদর্শী বলছেন, আপার লারস সীমান্ত চেকপয়েন্টে গাড়ির সারি পাঁচ কিলোমিটার পর্যন্ত দীর্ঘ হয়েছে। একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, কিছু চালক তাদের গাড়ি সেই দীর্ঘ সারিতে রেখে চলে যাচ্ছেন। 

ইত্তেফাক/এসআর