রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ময়মনসিংহ ফিরেই গণসংবর্ধনা পেলো সানজিদা-মারিয়ারা

আপডেট : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৮:৪৫

সাফজয়ী বাংলাদেশ দলের ময়মনসিংহের কলসিন্দুর গ্রামের ৮ ফুটবল কন্যাকে উষ্ণ অভ্যর্থনায় বরণ করে নিয়েছে জেলার সর্বসাধারণ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সানজিদা-মারিয়ারা সড়কপথে ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ এসে পৌঁছালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চুরখাই এলাকায় তাদের ফুলের মালা পরিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। পরে ছাদখোলা গাড়িতে শোভাযাত্রাসহ ময়মনসিংহ নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সার্কিট হাউজে আসেন ফুটবল কন্যারা। এসময় রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে তাদেরকে অভিবাদন জানায় নগরবাসি।

এরপর বিকেলে শিল্পাচার্য জয়নুল আবদীন পার্কের বৈশাখী মঞ্চে জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও ফুটবল অ্যাসোসিয়শনের উদ্যোগে সানজিদা, মারিয়া, শিউলি আজিম, মারজিয়া আক্তার, শামসুন্নাহার, তহুরা, সাজেদা ও শামসুন্নাহার জুনিয়রদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তারা সার্কিট হাউজ থেকে সুসজ্জিত ঘোড়ার গাড়ী করে বৈশাখী মঞ্চে হাজির হয়।

ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার শফিকুর রেজা বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমদ এমপি, রেঞ্জ ডিআইজি দেবাদাস ভট্টাচার্য, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকা, ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক এহতেশামূল আলম বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমদ এমপি সাফ শিরোপা জয়ের মতো অনন্য কৃতিত্ব ও সাফল্যের জন্য ফুটবলারদের ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, এ কৃতিত্ব সারা বাংলাদেশের। একইসঙ্গে ময়মনসিংহ তথা ধোবাউড়ার সর্বস্তরের জনগনের জন্য এটি গর্বের
ব্যাপার। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণকারী ৮ জনই ময়মনসিংহের ধোবাউড়ার কলসিন্দুর গ্রামের গর্বিত সন্তান। ভবিষতে তারা বাংলাদেশের নারী ফুটবলে আরো সাফল্য বয়ে আনবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে মারিয়া ও সানজিদা সাফ জয়ের অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, আমাদের এ বিজয় সকলের। এ বিজয়ের পিছনে আমাদের বিদ্যালয়ের যারা প্রশিক্ষণ দিয়ে গড়ে তুলেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। ভবিষতে আমরা সবার মুখে হাসি ফোঁটাতে চাই। ক্রীড়াক্ষেত্রে আরো সাফল্য বয়ে নিয়ে আসবো। এ জন্য সবার প্রতি দোয়া কামনা করছি।

অনুষ্ঠানে ফুটবল কন্যাদের প্রত্যেককে ক্রেস্ট, গৃহায়ন প্রতিমন্ত্রীর পক্ষ থেকে দুই লাখ টাকা, জেলা ক্রীড়া সংস্থা এক লাখ টাকা এবং প্রান্ত স্প্যাশালাইজড হাসপাতালের পক্ষ থেকে এক লাখ টাকা প্রদান করা হয়।

এর আগে সকালে ঢাকা থেকে আসার পথে ভালুকা ও ত্রিশালে সানজিদাদের পৃথক পৃথক সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এ সময় ভালুকার সংসদ সদস্য কাজিম উদ্দিন ধনু ও ত্রিশালের সংসদ সদস্য আলহাজ্জ্ব রুহুল আমিন মাদানী ফুটবলারদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়। এ সময় শত শত ফুটবল প্রেমী ও উৎসুক জনতা হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান বাংলার বাঘিনীদের।

চুরখাই কমিউনিটি মেডিকেল করেলজ হাসপাতাল এলাকায় পৌছলে জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও ফুটবল অ্যাসোসিয়শনের নেতৃবৃন্দ তাদেরকে স্বাগত জানান। পরে মোটর সাইকেল শোভাযাত্রা সহকারে ফুটবল কন্যাদের সার্কিট হাউজে নিয়ে আসা হয়।

ইত্তেফাক/এসএস

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন