বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

জার্মানিতে আবার ফিরছে করোনা

আপডেট : ০৩ অক্টোবর ২০২২, ২০:৫৩

গত সপ্তাহ দুয়েক ধরে জার্মানিতে করোনা ভাইরাসের সংক্রণদ্রুত বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে মোট ৯৬ হাজার ৩৬৭ জনের দেহে সংক্রমণ ধরা পড়েছে। ফলে সরকার যে সতর্কবার্তা দিয়ে আসছিল তা পুরোপুরি সত্যি হতে চলেছে। গত সপ্তাহের তুলনায় সংক্রমণ দ্বিগুণ বাড়ায় কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারগুলো ইতিমধ্যে সতর্ক অবস্থান নিয়েছে। ফলে আবার ফিরছে নির্দিষ্ট কিছু স্থানে মাস্ক পরার কড়াকড়ি।

শনিবার থেকে জার্মানির সব দূরপাল্লার ট্রেনে ১৪ বছরের বেশি বয়সি সব যাত্রীকে এফএফপি২ মাস্ক পরতে হবে। অন্য গণপরিবহণ, অর্থাৎ লোকাল ট্রেন, বাস এবং ট্রামে অবশ্য যুক্তরাষ্ট্রের এন৯৫-এর সমতুল্য এই মাস্ক পরা এখনই বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে না। সেসব যানবাহনে যাত্রীদের সার্জিক্যাল মাস্ক পরতে হবে।  স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আরো জানিয়েছে, বিমান এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এড়ানোর বিষয়ে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। বিমানে যাত্রীদের ইউরোপের অন্যান্য দেশের বিমানে যে ধরনের মাস্ক পরতে হয়, সেই মাস্কই পরতে হবে।

জার্মানির সব স্কুলে ১১-র কম বয়সের শিক্ষার্থীদের জন্য এখনো মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়নি। তবে ১১-র বেশি বয়সিদের পরবর্তী ঘোষণার আগ পর্যন্ত স্কুলে সব সময় সার্জিক্যাল মাস্ক পরতে হবে।

এছাড়া হাসপতাল, নার্সিং হোম এবং ডাক্তারদের চেম্বারেও ফিরছে স্বাস্থ্যবিধির কড়াকড়ি। এসব জায়গায় সবাইকে এফএফপি২ মাস্ক পরতে হবে। নার্সিং হোম এবং হাসপাতালে ঢুকতে হলে সবাইকে করোনা পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে। ডাক্তার, নার্স এবং অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের সপ্তাহে একাধিকবার করোনা পরীক্ষা করতে হবে।

অতীতে করোনা মহামারিকে রুখতে কেন্দ্রীয় সরকারের লকডাউন বা কঠোর স্বাস্থবিধির ঘোষণায় অনেক রাজ্যই অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। তবে এবারের পরিস্থিতি ভিন্ন। এবার জার্মানির ১৬টি রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রীই করোনার সংক্রমণ যাতে আর না বাড়ে সেই বিষয়ে সতর্ক থাকার বিষয়ে একমত হয়েছেন।

ইত্তেফাক/এএইচপি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন