শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

হামলার প্রতিবাদে রাকিনের এমডি সুইস নাগরিকের সংবাদ সম্মেলন

আপডেট : ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০:৫১

বিদেশি বিনিয়োগকৃত প্রতিষ্ঠান রাকিন ডেভেলপমেন্টে সন্ত্রাসী হামলা ও মূল্যবান জিনিসপত্র লুটপাটের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক(এমডি) সুইজারল্যান্ডের নাগরিক ফাদি বিতার ও উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুমাইয়া তাসনীন সংবাদ সম্মেলন করেছেন। 

বুধবার (৫ অক্টোবর) সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন, বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কোন নিরাপত্তা না থাকে তাহলে বিদেশী বিনিয়োগ আরও হুমকির মুখে পড়বে। আমরা সরকারের মন্ত্রী পর্যায় থেকে যথেষ্ট সহযোগিতা পাওয়া সত্ত্বেও ঠিকভাবে কোম্পানির কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারছি না। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন আমাদের কোনো সহায়তা করছে না। 

সংবাদ সম্মেলনে সুইস এই নাগরিক বলেন, প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগে (এফডিআই) বাংলাদেশের আবাসন খাতে ২০০৮ সালে যাত্রা শুরু করে রাকিন ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি (বিডি) লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটি ইতিমধ্যে রাজধানীর মিরপুরে ‘রাকিন বিজয় সিটি’ নামে একটি মেগা আবাসন প্রকল্প সম্পন্ন করেছে। এছাড়াও কাঁচপুরে ‘রাকিন ট্রাঙ্কুল টাউন’ নামে আরও একটি মেগা আবাসন প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে, গত ২৪ সেপ্টেম্বর সকাল ১১ টায় মিরপুরে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এস এ কে একরামুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল বহিরাগত সন্ত্রাসী অতর্কিত হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা আমাকে ও প্রতিষ্ঠানটির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুমাইয়া তাসনীনকে শারিরীকভাবে লাঞ্চিত করে। তারা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মূল্যবান জিনিসপত্র লুটপাট ও তছনছ করে। তারা রাশেদুল আলম, আরিফুর রহমান তপন, সুমাইয়া তাসনীন ও আমাকে শারীরিকভাবে আঘাত করে পদত্যাগ সংক্রান্ত একটি বে-আইনী চিঠিতে স্বাক্ষর করিয়ে নিয়ে অফিস থেকে বের করে দেয়।

সুইস নাগরিক ফাদি বিতার আরো বলেন, রাকিন ডেভেলপমেন্টের সাবেক এমডি আকরামুজ্জামান ও তার ভাই কোম্পানির পরিচালক এ কে আনোয়ারুজ্জামানের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে ১৮৪ কোটি দুবাইয়ে পাচারের অভিযোগে ২০১৯ সালে দুদক মামলা দায়ের করেছে। এরাই আবার এই কোম্পানি দখল করেছে। এই ঘটনার সাথে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি, বিদেশি বিনিয়োগ ও বিদেশিদের নিরাপত্তার মতো বিষয় জড়িত বিধায়, এ বিষয়ে দ্রুততার ভিত্তিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি