রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

রাঙ্গামাটিতে মাসব্যাপী কঠিনচীবর দান উৎসব শুরু

আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০২২, ০৫:৩০

পঞ্চশীল প্রার্থনাসহ ধর্মীয় আচার পালনের মধ্যদিয়ে রাঙ্গামাটির আসামবস্তি বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার ও রাঙ্গামাটি উলুছড়ি ছাবা বৌদ্ধ বিহারে চীবর উৎসর্গের মাধ্যমে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় অনুষ্ঠান দানোত্তম কঠিনচীবর দান উৎসব (ভিক্ষুদের গেরুয়া রঙের বস্ত্র প্রদান অনুষ্ঠান) শুরু হয়েছে। চলবে পুরো এক মাস। চীবর দানের আগে রাঙ্গামাটিতে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য ও উত্সাহ-উদ্দীপনার দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব প্রবারণা পূর্ণিমা রাঙ্গামাটিতে উদযাপন করেছে।

সোমবার দুপুরে রাঙ্গামাটি আসামবস্তি বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার ও রাঙ্গামাটি বড়ুয়া জনকল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ২৩তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান উৎসব শুরু হয়। বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার ও রাঙ্গামাটি বড়ুয়া জনকল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক উদয়ন বড়ুয়ার পরিচালনায় ধর্মসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, রাঙ্গামাটির সংসদ সদস্য দীপঙ্কর তালুকদার, বিশেষ অতিথি ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. সুপ্রিয় বড়ুয়া, বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার ও রাঙ্গামাটি বড়ুয়া জনকল্যাণ সংস্থার সভাপতি রণজিৎ কুমার বড়ুয়া।

এর আগে পার্বত্য ভিক্ষু সংঘের রাঙ্গামাটি পৌর শাখার প্রধান উপদেষ্টা ভদন্ত ধর্মকৃর্তি মহাথেরোর সভাপতিত্বে আয়োজিত দানোত্তম কঠিনচীবর দান উৎসবে ধর্মসভায় পূর্ণার্থীদের উদ্দেশে প্রধান ধর্মদেশক প্রদান করেন, কাউখালী শান্তি নিকেতন বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত শ্রীমৎ জ্ঞানানন্দ মহাথেরো এবং আসামবস্তি ধর্মচক্র বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ পাঞ্ঞা বংশ মহাথেরো। সদ্ধর্মালোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম চন্দনাইশ কেন্দ্রীয় শ্রদ্ধানন্দ বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত শ্রীমৎ বোধিপ্রিয় ভিক্ষু। অনুষ্ঠানে পবিত্র মঙ্গলাচরণ পাঠ করেন বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ করুনাপাল ভিক্ষু। এতে শতশত বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। পরে পঞ্চশীলের মাধ্যমে মঙ্গলাচরণের পর ভিক্ষুসংঘকে চীবর উৎসর্গ করা হয়। বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহারে সমবেত প্রার্থনায় অংশ নিয়ে রাঙ্গামাটি বড়ুয়া সম্প্রদায়ের মানুষ ভিক্ষুসংঘকে চীবর দান করেন।

ইত্তেফাক/এমএএম