শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ পেতে কুষ্টিয়ার প্রতিবন্ধী স্কুলের দুই শিক্ষকের পদযাত্রা

আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০২২, ১২:২৩

কুষ্টিয়াসহ দেশের সকল প্রতিবন্ধী স্কুলের সরকারি স্বীকৃতি ও এমপিওভুক্তি দাবিতে কুষ্টিয়ার প্রতিবন্ধী স্কুলের দুই প্রধান শিক্ষক প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের উদ্দেশ্যে পদযাত্রা শুরু করেছেন। 

বুধবার (১২ অক্টোবর) সকাল সোয়া ১১টার দিকে ওই দুই শিক্ষক পদযাত্রা শুরু করেন। 

কুষ্টিয়ার ডিসি মো. সাইদুল ইসলাম ও সমাজসেবা অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক মুরাদ হোসেনের সাথে সাক্ষাৎ ও স্মারকলিপি প্রদানের পর তারা এই যাত্রা শুরু করেন। 

পদযাত্রাকারী দুই শিক্ষক হলেন, কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার নওদা আজমপুর জনসেবা প্রতিবন্ধী স্কুলের প্রধান শিক্ষক শারীরিক প্রতিবন্ধী শেরেবুল ইসলাম ও কুষ্টিয়া সদর উপজেলার জুগিয়া দর্গাপাড়ার রত্না-হেরা প্রতিবন্ধী স্কুলের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক।

বুধবার সন্ধ্যায় রাজবাড়ী জেলায় পৌঁছে সেখানে রাত যাপনের পর বৃহষ্পতিবার (১৩ অক্টোবর) সকালে তারা পায়ে হেঁটে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কুষ্টিয়ার ১০/১১টিসহ দেশের ৬৪ জেলার ২৬৯৪টি প্রতিবন্ধী স্কুল স্বীকৃতি ও এমপিওভুক্তির জন্য ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে অনলাইনে আবেদন করা হয়। এতে যাচাই-বাছাইয়ে স্বীকৃতি ও এমপিওযোগ্য বিবেচিত ১৭০০টি স্কুল অনলাইলে তালিকাভুক্ত হয়। কিন্তু তালিকাভুক্তির দুই বছর অতিবহিত হলেও ওই স্কুলগুলো সরকারি স্বীকৃতিসহ এমপিওভুক্ত হয়নি। এতে প্রতিবন্ধী স্কুলের শিক্ষকরা মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। 

উপায় না পেয়ে কুষ্টিয়ার প্রতিবন্ধী স্কুলের দুই প্রধান শিক্ষক শেরেবুল ইসলাম ও আব্দুর রাজ্জাক প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ পেতে কুষ্টিয়া সমাজসেবা জেলা কার্যালয় চত্বর থেকে পায়ে হেঁটে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন। তাদের দাবি আদায়ে দেশের ৬৪ জেলার প্রতিবন্ধী স্কুলের শিক্ষকরাও নিজ নিজ জেলা থেকে পায়ে হেঁটে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। 

প্রত্যেক জেলার প্রতিবন্ধী স্কুলের শিক্ষকরা ঢাকায় পৌঁছার পর প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাত পেতে তাঁর তেজগাঁও কার্যালয়ের সামনে জড়ো হবেন। সাক্ষাৎ পেলে তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে প্রতিবন্ধী স্কুলের শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের দুঃখ-দুর্দশা তুলে ধরে স্বীকৃতিসহ প্রতিবন্ধী স্কুল এমপিওভুক্তির দাবি করবেন।

প্রধান শিক্ষক শেরেবুল ইসলাম জানান, মানবতার মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ পেতে পায়ে হেঁটে রওনা হয়েছি। আমাদের দুঃখ-দুর্দশা প্রধানমন্ত্রী লাঘব করবেন বলে তিনি আশাবাদী।  

সমাজের মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে বিশেষ শিক্ষা নীতিমালা অনুসারে দেশে স্থাপিত প্রতিবন্ধী স্কুল স্বীকৃতি ও এমপিওভুক্তির জন্য ২০২০ সালে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে অনলাইনে আবেদন করা হয়। কিন্তু এখনো তা আলোর মুখ দেখেনি।

কুষ্টিয়া সমাজসেবা অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক মুহাম্মদ মুরাদ হোসেন জানান, পদযাত্রায় অংশ গ্রহণের আগে প্রতিবন্ধী স্কুলের দুই শিক্ষক শেরেবুল ইসলাম ও আব্দুর রাজ্জাক বিষয়টি তাকে জানিয়েছেন। এছাড়া তাদের দাবি সম্বলিত একটি কপি তাকে দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।   

কুষ্টিয়ার ডিসি মো. সাইদুল ইসলাম জানান, জেলা প্রশাসকের ই-সেবা শাখায় এ সংক্রান্ত একটি চিঠি তারা জমা দিয়েছেন। তবে তার সঙ্গে ওই দুই শিক্ষক সাক্ষাৎ করেননি বলে জানান ডিসি।  

 

ইত্তেফাক/পিও