বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

খেরসন থেকে রুশ সেনা প্রত্যাহার নিয়ে ইউক্রেনের সন্দেহ

আপডেট : ১০ নভেম্বর ২০২২, ১০:৪৫

সম্প্রতি ইউক্রেনে রাশিয়া অধিকৃত গুরুত্বপূর্ণ শহর খেরসন থেকে রুশ সেনাদের পিছু হটতে নির্দেশ দিয়েছিল রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে কিয়েভ এ বিষয়ে সন্দিহান। এক বিশ্লেষক সতর্ক করে জানান, এটি একটি মারাত্মক ফাঁদে দেশটির বাহিনীকে প্রলুব্ধ করার একটি কৌশল হতে পারে। আমেরিকান সংবাদ মাধ্যম সিবিএস নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। 

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা মিখাইলো পদোলিয়াক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার পোস্টে লিখেন, 'আমরা কোনো লক্ষণ দেখছি না যে রাশিয়া যুদ্ধ ছাড়াই খেরসন ছেড়ে চলে যাচ্ছে। রাশিয়ার ঘোষণাটি একটি চক্রান্ত হতে পারে।' 

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা মিখাইলো পদোলিয়াক

এছাড়াও পদোলিয়াক রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর এই আদেশকে একটি মঞ্চায়িত নাটক বলে অভিহিত করেছেন। রাশিয়ার নির্দেশের পরপরই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে পদোলিয়াক এই তথ্য জানায়।

বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু বুধবার (৯ নভেম্বর) খেরসন থেকে রুশ সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন। টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক বৈঠকে সের্গেই শোইগু জেনারেল সের্গেই সুরোভিকিনের সঙ্গে বৈঠকে এই নির্দেশ দেন। সুরোভিকিনকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, 'সেনা প্রত্যাহার শুরু করুন।' 

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউক্রেনে যুদ্ধ পরিচালনার জন্য নিযুক্ত রুশ জেনারেল সের্গেই সুরোভিকিন জানান, খেরসন শহরটিতে যুদ্ধের বিভিন্ন সরঞ্জাম সরবরাহ বজায় রাখা আর সম্ভব নয়। 

রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু জেনারেল সের্গেই সুরোভিকিনকে খেরসন থেকে রুশ সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন

সামরিক বিশেষজ্ঞদের মতে, খেরসন থেকে রুশ সেনাদের প্রত্যাহারের মানে হলো নিপার নদীর পশ্চিম তীরে অবস্থিত ইউক্রেনীয় ভূখণ্ড রাশিয়ার সেনা মুক্ত হওয়া। সুরোভিকিন এই সিদ্ধান্তকে একটি কঠিন সিদ্ধান্ত বলে আখ্যা দিয়েছেন।

ইত্তেফাক/ডিএস