রোববার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বাংলাদেশে আসছে সিঙ্গাপুরের ব্যাংক ডিবিএস

এইচএসবিসির সাবেক নির্বাহী ডিবিএস ঢাকার প্রধান প্রতিনিধি

আপডেট : ১৬ নভেম্বর ২০২২, ২২:৩৭

বিশ্বব্যাপী ১৯ টি বাজারে আসছে সিঙ্গাপুরভিত্তিক বহুজাতিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক অব সিঙ্গাপুর (ডিবিএস) লিমিটেড। এরই অংশ হিসেবে বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরু করছে তারা। ২০২১ সালে বাংলাদেশের তৃতীয় বৃহত্তম আমদানিকারক অংশীদার ছিল সিঙ্গাপুর, যার আমদানির পরিমাণ প্রায় ২.৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। 

১৬ নভেম্বর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, ডিবিএস ঢাকার প্রধান প্রতিনিধি হিসেবে তাহসিনা বানুকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ২০১৯ সাল পর্যন্ত তিনি ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কর্পোরেশনে (আই এফ সি) কাজ করেন। তাহসিনা বানু এইচএসবিসি ব্যাংকের ইন্টারন্যাশন্যাল কর্পোরেট ব্যাংকিং শাখার কান্ট্রি হেড হিসেবেও কাজ করেন। ২০ বছরেরও বেশি সময় আন্তর্জাতিক ব্যাংকের সাথে বাংলাদেশ ও মধ্যপ্রাচ্য সুনামের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। তাহসিনা বানুর হোলসেল ব্যাংকিং, ট্রেড অপারেশনস ও রিস্ক ম্যানেজমেন্ট সহ ব্যাংকিং ব্যবসার বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজের বিস্তৃত অভিজ্ঞতা রয়েছে।

বিগত দুই দশক যাবৎ সিঙ্গাপুরের সঙ্গে বাংলাদেশ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক অংশীদার হিসেবে কাজ করে আসছে।

ডিবিএস ঢাকার প্রধান প্রতিনিধি তাহসিনা বানু।

বাণিজ্যে অর্থায়ন এবং এ সংশ্লিষ্ট পরামর্শ প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাথে নিজেদের সম্পৃক্ততা বজায় রেখে চলেছে ডিবিএস। পাশাপাশি, বাংলাদেশে প্রকল্প বিনিয়োগের ক্ষেত্রেও সহায়ক ভূমিকা রয়েছে ডিবিএস-এর। বাংলাদেশে প্রতিনিধি অফিস খোলার মাধ্যমে দেশে ব্যাংকটির কার্যক্রম আরও বিস্তৃত হবে। একইসাথে, বিশ্বজুড়ে ডিবিএস গ্রাহকদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনেও মিড-টার্ম ভূমিকা পালন করবে ডিবিএস ঢাকা।

ঢাকায় ডিবিএস ব্যাংকের প্রতিনিধি অফিস খোলার ব্যাপারে ডিবিএস’র গ্রুপ হেড অব ইনস্টিটিউশনাল ব্যাংকিং গ্রুপ, তান সু শান বলেন, “সিঙ্গাপুর যখন এ বছর বাংলাদেশের সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন করছে, আমরা মনে করি বাংলাদেশের মতো এমন দ্রুতবর্ধনশীল বাজারে বিনিয়োগ করার এটাই সঠিক সময়। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে গুরুত্বপূর্ণ ভৌগলিক অবস্থানের কারণে বাংলাদেশের গুরুত্ব বেড়েছে। তাই, এ অঞ্চলে আমাদের গ্রাহকদের বিনিয়োগ ও সম্প্রসারণের পরিকল্পনায় সর্বাত্মক সহায়তার প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবেই এই প্রতিনিধি অফিস খোলা হবে।”

আন্তর্জাতিক ঋণমান সংস্থা স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড পুওর’স (এসঅ্যান্ডপি) এবং মুডি’স-এর সর্বোচ্চ পর্যায়ের রেটিংপ্রাপ্ত ডিবিএস লিমিটেড পর পর ছয় বছর ‘এশিয়ার সবচেয়ে নিরাপদ ব্যাংক’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এছাড়া ইউরোমানি ২০১৬ সালে ডিবিএসকে বিশ্বের সেরা ডিজিটাল ব্যাংকের সম্মাননা দেয়। বিগত বছরগুলোতে ডিবিএস বিশ্বের একাধিক স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান থেকে সেরা ব্যাংকের স্বীকৃতি লাভ করে।

সিঙ্গাপুর ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, চীন, হংকং, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, মায়ানমার, ফিলিপিন্স, থাইল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাত, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ভিয়েতনামসহ আরও কয়েকটি দেশে ব্যাংকটির ৩০০ এর অধিক শাখা এবং বিশ্বের প্রায় ৫০টি প্রধান শহরে তাদের ব্যাংকিং কার্যক্রম রয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত এক দশকে সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগের (এফডিআই) হিসাবে সিঙ্গাপুর বর্তমানে তৃতীয় বৃহত্তম বিনিয়োগকারী দেশ হিসেবে বাংলাদেশের অর্থনীতি এবং উন্নয়নে অবদান রেখে চলেছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ‘আঞ্চলিক অর্থনৈতিক কেন্দ্র’ হিসেবে বিবেচিত সিঙ্গাপুর থেকে এতদিন কোন বৃহৎ ব্যাংক বা অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে বিনিয়োগে উদ্যোগী হয়নি।

ইত্তেফাক/এএইচপি