সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

কাতারে নেইমারদের হেক্সা মিশনে প্রথম প্রতিপক্ষ সার্বিয়া

আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০২২, ০৭:০২

বিশ্বকাপের প্রতিটি আসরে খেলা একমাত্র দল ব্রাজিলকে এবারের আসরে রাখা হচ্ছে শীর্ষ ফেভারিট দলগুলোর তালিকায়। সবশেষ ২০০২ সালে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত বিশ্বকাপে খেলতে এসে ব্রাজিল পঞ্চমবারের মত স্বাদ পেয়ে শিরোপা জয়ের। এরপর কেটে গেছে ২০ বছর এসময় অনুষ্ঠিত হয়েছে চারটি বিশ্বকাপ তার মধ্যে একটি অনুষ্ঠিত হয়েছে নিজেদের ঘরের মাটিতে। তবে আর পারেনি নিজেদের জার্সিতে আরেকটি স্টার যুক্ত করতে। কিন্তু আবার রয়েছে তাদের সামনে সেরা সুযোগ। কেনন এবার সেলেসাওদের দলে প্রতিটি পজিশনেই রয়েছে তরুণ এবং সেরা খেলোয়াড় যারা কিনা বিভিন্ন ক্লাবে নিজেদের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছে বহুবার।

কাতারে মিশন হেক্সা মিশনে আজ রাত ১টায় লুসাইল স্টেডিয়ামে মাঠে নামবে ব্রাজিল। আসরের প্রথম প্রতিপক্ষ হিসেবে নেইমাররা পাচ্ছে ইউরোপের দেশ সার্বিয়াকে। গতবার অনুষ্ঠিত হওয়া রাশিয়া বিশ্বকাপেও মুখোমুখি হয়েছিল এ দুই দল। ঐ ম্যাচটিতে ২-০ গোলে জয় পায় তিতের ব্রাজিল।

তবে এবার গতবারের হিসেব করলে চলবে না। কারণ দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে সার্বিয়া। ব্রাজিল যদি কিছুটা সতর্ক না থেকে খেলে তাহলে হয়তো লিওনেল মেসির দল আর্জেন্টিনার মতো ধাক্কা খেতে পারে। সার্বিয়া এবার বিশ্বকাপে প্রবেশের পূর্বে দারুণ কয়েকটি ম্যাচ খেলেছে। এছাড়া বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করেছে একটি ম্যাচও না হেরে। শুধু তাই নয় শেষ ম্যাচে ক্রিশ্চিয়ানোর দল পর্তুগালকে শেষ মুহূর্তের গোলে হারিয়েই তারা এবারের বিশ্বকাপে পা রাখে।

কিন্তু এবারের আসরে আসার আগেই সাম্বা বয়েজ খ্যাত ব্রাজিল দল হেক্স মিশনে বেশ আত্মবিশ্বাসী হয়ে আছে। কেননা বিশ্বকাপের আগে তাদের খেলা সর্বশেষ ছয়টি প্রস্তুতি ম্যাচের মধ্যে সবকটিতেই জয়লাভ করেছে তারা। তারা বর্তমানে বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে ইন-ফর্ম দল, এবং নিঃসন্দেহে ফিফা র্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকার যোগ্য দলও তারাই। তাদের সেই সর্বশেষ ছয়টি জয়ের মধ্যে বলিভিয়া এবং চিলি ব্যতীত বাকি চারটি জয়ই এসেছে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে চলেছে এমন দলের বিপক্ষে। তিতে’র শিষ্যদের মধ্যে প্রায় সকলেই রয়েছেন রেড-হট ফর্মে এবং ফলটিতে কোনো প্রকার দুর্বল স্থান খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন। দলের প্রত্যেকটি পজিশনই প্রতিভায় টইটম্বুর এবং প্রত্যেক খেলোয়াড়ই হেক্সা জয়ের জন্য ক্ষুধার্ত।

 

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন