শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

আর্জেন্টিনার জয়ের ম্যাচে রেকর্ড দর্শক, উঠল বিতর্কও

আপডেট : ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৫৪

সৌদি আরবের কাছে প্রথম ম্যাচে হারলেও পরশু মেক্সিকোর বিপক্ষে ২-০ গোলের জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা। প্রিয় দলের ঘুরে দাঁড়ানো এই জয়ে দারুণ খুশি আর্জেন্টাইন ভক্তরা। চাইলে আর্জেন্টাইন সমর্থকেরা অন্য একটা কারণেও খুশি হতে পারেন। মেক্সিকোর বিপক্ষে আর্জেন্টিনার এই জয়ের ম্যাচটি যে দর্শকসংখ্যার রেকর্ড গড়েছে। এবারের বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি দর্শক হয়েছিল আর্জেন্টিনা-মেক্সিকো ম্যাচে। 

ফিফা জানিয়েছে, লুসাইল স্টেডিয়ামে এদিন হাজির হয়েছিলেন ৮৮ হাজার ৯৬৬ জন দর্শক। এবারের বিশ্বকাপে তো বটেই, পরিসংখ্যান ঘেঁটে জানা যাচ্ছে, ১৯৯৪ বিশ্বকাপ ফাইনালের পর (৯৪ হাজার ১৯৪) পুরুষদের বিশ্বকাপের কোনো এক ম্যাচে এটাই সর্বোচ্চ দর্শক উপস্থিতির রেকর্ড। এমনিতে লুসাইল স্টেডিয়ামের দর্শক ধারণক্ষমতা ৮০ হাজার। তবে এদিন এর চেয়েও ৮ হাজার ৯৬৬ জন বেশি দর্শক গ্যালারিতে উপস্থিত ছিলেন।

এই দর্শকসংখ্যা নিয়েও দেখা দিয়েছে বিতর্ক। সরকারিভাবে জানানো হয়েছে, লুসাইল স্টেডিয়ামের মোট আসনসংখ্যা ৮০ হাজার। তাহলে কী করে আরো প্রায় ৯ হাজার অতিরিক্ত দর্শক স্টেডিয়ামে ঢুকে গেলেন? শুধু তাই নয়, সৌদি আরবের বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার প্রথম ম্যাচও হয়েছিল এই লুসাইল স্টেডিয়ামে। সেই ম্যাচও দেখেছিলেন ৮৮ হাজারের মতো দর্শক। আসলে সব স্টেডিয়ামেই দেখা যাচ্ছে আসনসংখ্যার থেকে বেশিসংখ্যক দর্শক এসেছেন। কিন্তু কীভাবে?

স্বাগতিক কাতারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ফিফার যে চাহিদা, স্টেডিয়ামের ধারণক্ষমতা তার থেকে বেশিই। অর্থাৎ, ফিফার চাহিদা অনুযায়ী লুসাইলের আসনসংখ্যা সর্বনিম্ন ৮০ হাজার রাখার কথা বলা হলেও, সেই স্টেডিয়ামের ধারণক্ষমতা প্রায় ৮৯ হাজার। সাংবাদিক ও সম্প্রচারকারীদের আসন ধরলে সেটি ৯২ হাজারের কাছাকাছি। ফলে যে দর্শকসংখ্যা প্রকাশ করা হচ্ছে, তার মধ্যে কোনো ভুল নেই।

কিন্তু বিতর্ক এতেও থামছে না। আর্জেন্টিনা-সৌদি আরব ম্যাচে হাজির থাকা অনেক সাংবাদিকই টুইট করে জানান, বেশ কিছু আসন ফাঁকা লক্ষ করেছেন। এমনকি, বাকি ম্যাচগুলো নিয়েও একই অভিযোগ রয়েছে। তবে কাতার বা ফিফার পক্ষ থেকে এর কারণ জানানো হয়নি।

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন