শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

কাউছার হত্যা: অপরাধীদের শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২২, ২০:১৮

ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে আলোচিত কাউছার হত্যা মামলায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে তার পরিবার ও এলাকাবাসী। মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) চরভদ্রাসন পুরাতন ইউনিয়ন পরিষদের সামনে থেকে পদযাত্রা করে উপজেলা পরিষদের সামনে গিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ। এ সময় কাউছার হত্যা মামলায় গ্রেফতার হওয়া দুই আসামিসহ দুর্বৃত্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়।

মানববন্ধনে স্বামী হত্যার বিচার চেয়ে কাউছারের স্ত্রী শারমিন আক্তার (৩৩) বলেন, গত শনিবার আমার স্বামী খুন হয়েছে এবং রোববার দুই আসামিকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। আসামির বক্তব্যে আমার স্বামীর চরিত্রে যে কালিমা লেপন করা হয়েছে তা মিথ্যা। তিনি একদিকে যেমন ছিলেন আদর্শ স্বামী তেমনি তার সন্তানদের কাছে ছিলেন ভালো বাবা।

ছেলে হত্যার বিচার চেয়ে কাউছারের মা কুলছুম বেগম (৭০) বলেন, আমার মতো কোনো মায়ের কোল যেন আর খালি না হয়। আমি আমার ছেলে হত্যায় জড়িতদের বিচার চাই।

কাউছারের ভাই লিয়াকত খান (৩৫) বলেন, আমার ভাই হত্যার ঘটনায় যে আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে তার একার পক্ষে এই হত্যা করা সম্ভব না। এই হত্যার সঙ্গে আরও লোক জড়িত থাকতে পারে।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) উপজেলার চর হরিরামপুর ইউনিয়নের জাকেরের সুরা ভাঙ্গার মাথা এলাকায় পদ্মা নদীর পাড়ে বালুর স্তুপের উপর বালু ব্যবসায়ী মো. কাউছার খানের (৪১) রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে এই ঘটনায় নিহতের ভাই লিয়াকত বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার দিন শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে হত্যায় জড়িত দুই আসামি সাফাওয়াত ইসলাম সিফাত (১৬) ও তার বাবা মো. শাহীন মোল্লাকে (৫০) গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায় পুলিশ।

রোববার ফরিদপুর জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সন্মেলন করে প্রেস ব্রিফিং দেন পুলিশ সুপার মো. শাহ্জাহান। আসামির দেওয়া তথ্য অনুসারে পুলিশ জানায়, নিহত কাউছারের সঙ্গে আসামি সিফাতের সমকামী সম্পর্ক ছিলো। ঘটনার দিন তাকে মুঠোফোনে খবর দিয়ে বলাৎকার করার উদ্দেশ্যে ঐ স্থানে নিয়ে যায় কাউছার। এতে সিফাত রাজি না হওয়ায় দুজনের মধ্যে বাক-বিতণ্ডতার এক পর্যায়ে ব্যবসায়ী কাউছারের গলায় চাকু দিয়ে আঘাত করলে সে বালুর ভিতরে পড়ে যায়। পরে সিফাত তার পিঠের উপর বসে তার গলা ও ঘাড়ে উপর্যপুরি আঘাত করে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে।

অভিযানে আসামির কাছ থেকে মোটরসাইকেল, ব্যবহৃত পোষাক, চাকু ও আগুনে পুড়িয়ে ফেলা মোবাইলের যন্ত্রাংশ উদ্ধার করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/আই/পিও