শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

তিন বিষয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন সেই দর্শক

আপডেট : ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৪:২১

গত সোমবার পর্তুগাল-উরুগুয়ের ম্যাচ চলাকালেই হুড়মোড় করে মাঠে ঢুকে পড়েন এক খেপাটে দর্শক। তার হাতে ছিল রংধনু পতাকা। তাকে মাঠ তাড়া করার আগে মুহূর্তের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছিল খেলা। প্রশ্ন হলো, কে এই দর্শক? কেনই বা তিনি নিরাপত্তা বেষ্টুনীকে ফাঁকি দিয়ে এভাবে মাঠে ঢুকে পড়েছিলেন? 

প্রথম অবস্থায় মনে হচ্ছিল, হয়তো ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে ভালোবাসা জানাতেই হয়তো এত বড় ঝুঁকিটা নিয়েছিলেন তিনি। কারণ, মেসি-রোনালদোদের সঙ্গে এমনটা প্রায়ই ঘটে। কিন্তু না, কাতার বিশ্বকাপের কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে বৃদ্ধাঙুলি দেখিয়ে মাঠে ঢুকে পড়া ঐ দর্শক রোনালদো-ভক্ত নন। তার দেশ কোথায় সেটা অবশ্য স্পষ্ট হওয়া যায়নি। তবে তিনি একজন প্রতিবাদী। প্রতিবাদের অংশ হিসেবেই ঝুঁকি নিয়ে ম্যাচ চলাকালে মাঠে ঢুকে পড়েন তিনি। তাও একটা নয়, তিনি একসঙ্গে প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনটি বিষয়ে। 

প্রথমত তার হাতে ছিল রংধনু পতাকা; যা মূলত ভালোবাসার প্রতীক। মেয়েদের খোলামেলা পোশাক পরা, প্রকাশ্যে চুম্বন, মদ্য পান—সবকিছুই কাতার বিশ্বকাপে নিষিদ্ধ। রংধনুর পতাকার মাধ্যমে এরই প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনি। দ্বিতীয়ত তার গায়ের টি-শার্টের সামনে লেখা ছিল ‘ইউক্রেনকে বাঁচাও’।  ইউক্রেনে রাশিয়ার বর্বোরিচত হামলার প্রতিবাদেই এমনটা লিখেছেন তিনি। টি-শার্টের পেছনে লেখা ছিল ‘ইরানের মেয়েদের সম্মানের জন্য’। ইরানের নারীরা যে হিজাববিরোধী আন্দোলন করছে তাদের প্রতি সমর্থন এবং আন্দোলন দমনে ইরান সরকারের নির্যাতন-নিপীড়নের প্রতিবাদ হিসেবে এমনটা লেখেন তিনি।

 

ইত্তেফাক/ইআ