শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

কী করলে কী হবে, গ্রুপ ‘ই’ ও ‘এফ’

আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৩২

কাতার বিশ্বকাপে যে বেদনার এই মিছিল শুরু হয়েছে, তাতে এরই মধ্যে নাম লিখিয়েছে এফ গ্রুপের দল কানাডা। বিদায়ের এই মিছিলে আজ যোগ হবে আরো তিনটি দেশ। ‘ই’ ও ‘এফ’ গ্রুপ থেকে আজ বাদ পড়তে যাচ্ছে আরো তিনটি দল। একইভাবে আজ আরো চারটি দল করতে যাচ্ছে নকআউটে ওঠার আনন্দ মিছিল। দুই গ্রুপের সাতটি দলেরই যেমন নকআউটে ওঠার আশা আছে, তেমনি সাতটি দলেরই বাদ পড়ার শঙ্কাও আছে। এই তথ্যটাই বলছে, এই দুই গ্রুপের শেষ রাউন্ডের লড়াইটা কতটা আকর্ষণীয়। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক, কোন দলকে কী করতে হবে!

গ্রুপ ‘ই’

  • স্পেন

নকআউট স্বপ্ন পূরণের পথে ‘ই’ গ্রুপ থেকে সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে স্পেন। প্রথম দুই ম্যাচ থেকে ৪ পয়েন্ট তাদের। ফলে আজ জাপানের সঙ্গে জিতলে তো বটেই, ড্র করলেও সরসারি শেষ ষোলোর টিকিট পেয়ে যাবে ২০১০-এর বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু যদি জাপানের কাছে হেরে যায় স্পেন? সেক্ষেত্রে স্পেনকে তাকাতে হবে জার্মানি ও কোস্টারিকার ম্যাচের দিকে। জার্মানি-কোস্টারিকার ম্যাচ ড্র হলে জাপানের কাছে হেরেও নকআউটে যেতে পারে স্পেন।  কিন্তু যদি কোস্টারিকা জিতে, তাহলে বাদ পড়বে স্পেন। আর যদি জার্মানি জিতে, সেক্ষেত্রে নিয়ামক হয়ে উঠবে স্পেনের হার এবং জার্মানির জয়ের ব্যবধান।

  • জাপান

কারো দিকে না তাকিয়ে সরাসরি শেষ ষোলোর টিকিট কাটতে হলে জাপানকে আজ স্পেনের বিপক্ষে জিততেই হবে। হারলে বিদায় নিশ্চিত। ড্র করলে আশা থাকবে, তবে সেক্ষেত্রে জাপানিদের তাকাতে হবে জার্মানি-কোস্টারি ম্যাচের দিকে। যদি এই ম্যাচটি ড্র হয়, তাহলে জাপানিরা হাসতে হাসতে নকআউটে যাবে। কিন্তু যদি এই ম্যাচে ফল হয়, তা কোস্টারিকাই জিতুক বা জার্মানি, জাপানিদের বাড়ি ফেরার টিকিট নিশ্চিত হবে।

কোস্টারিকা

জাপানের সমান ৩ পয়েন্ট কোস্টারিকারও। কিন্তু উত্তর আমেরিকার দেশটি গোল ব্যবধানে অনেক পেছনে। তার পরও কোস্টারিকার সমীকরণটাও প্রায় জাপানের মতোই। জার্মানির বিপক্ষে জিতলেই সরাসরি শেষ ষোলো। হারলে নিশ্চিত বাদ। ড্র করলে কোস্টারিকানদের তাকাতে হবে স্পেন-জাপান ম্যাচের দিকে। জাপান হারলে নিজেরা ড্র করেও কোস্টারিকা পেয়ে যাবে শেষ ষোলোর টিকিট। যদি স্পেন জিতে যায়, তাহলেও শেষ ষোলোতে যাবে তারা। কিন্তু যদি জাপান জিতে বা ম্যাচটি ড্র হয়, তাহলে কোস্টারিকাকে ধরতে হবে দেশের বিমান।

  • জার্মানি

গ্রুপে সবচেয়ে বিপদে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানি। তাদের হাতে মাত্র এক পয়েন্ট। ফলে অন্যের সাহায্য ছাড়া তাদের নকআউটে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই!  মানে প্রথমে কোস্টারিকার বিপক্ষে তাদের জিততেই হবে। তবে জয়ের পরও জার্মানদের তাকাতে হবে স্পেন-জাপান ম্যাচের দিকে। যদি স্পেন জিতে যায়, তাহলে কপাল খুলবে জার্মানদের। কিন্তু যদি জাপান জিতে যায়, তাহলে কোস্টারিকার বিপক্ষে জার্মানদের জিততে হবে অন্তত ৫-৬ গোলের ব্যবধানে! আর যদি স্পেন-জাপান ম্যাচ ড্র হয়। সেক্ষেত্রে জার্মানদের ২-০ গোলে জিতলেই চলবে।

‘এফ’ গ্রুপ

  • ক্রোয়েশিয়া

‘এফ’ গ্রুপ থেকে সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে গত আসরের রানার্সআপ ক্রোয়েশিয়া। ৪ পয়েন্ট তাদের। ফলে আজ বেলজিয়ামের বিপক্ষে আজ ড্র করলেই চলবে তাদের। জিতলে তো কথাই নেই। কিন্তু যদি হেরে যায়? তাহলে ক্রোয়াটদের তাকাতে হবে মরক্কো ও কানাডা ম্যাচের দিকে। এই কানাডা জিতলে নিজেরা হারলেও সমস্যা হবে না ক্রোয়েশিয়ার। কিন্তু যদি মরক্কো জিতে যায় বা ড্র হয়, তাহলে বাদ যাবে ক্রোয়েশিয়া।

  • মরক্কো

মরক্কোর সমীকরণটাও প্রায় স্পেনের মতোই। নিজেরা জিতলে তো বটেই, এমনকি কানাডার সঙ্গে ড্র করলেও শেষ ষোলো নিশ্চিত হবে তাদের। কিন্তু যদি হেরে যায়, তাহলে তাকাতে হবে ক্রোয়েশিয়া-বেলজিয়াম ম্যাচের দিকে। এই ম্যাচে ক্রোয়েশিয়া জিতলে কপাল খুলবে মরক্কোর। যদি ম্যাচটা ড্র হয়, তাহলে তাদের সামনে চলে আসবে কানাডার কাছে নিজেদের হারের ব্যবধানের বিষয়টি। আর যদি বেলজিয়াম জিতে, তাহলেও বাদ পড়তে হবে মরক্কোকে।

  • বেলজিয়াম

প্রথমত ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে জিতলে সরাসরিই নকআউটে যেতে পারবে বেলজিয়াম। হারলে বাদ। ড্র করলে একটা সম্ভাবনা থাকবে, তবে সেটা খুবই ক্ষীণ। সেক্ষেত্রে কানাডার কাছে মরক্কোকে অন্তত ৪-০ গোলের ব্যবধানে হারতে হবে! কানাডা-মরক্কোর ম্যাচ ড্র হলে বা মরক্কো জিতলে বেলজিয়ামকে ধরতে হবে বাড়ির পথ।

  • কানাডা

আগেই বিদায় নিশ্চিত হয়েছে কানাডার। ফলে আজ তারা শুধুই অন্যদের ভাগ্য গড়ার নিয়ামকের ভূমিকায়!

 

ইত্তেফাক/ইআ