শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

অনিদ্রার ভরসা ঘুমের ওষুধ যে ক্ষতি করে

আপডেট : ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:২৯

প্রত্যেকের জীবনেই ঘুম একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। বর্তমান সময়ে কমবেশি সব বয়সীদেরই ঘুমের সমস্যা দেখা যায়। আর এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতেই অনেকে সমাধান হিসেবে ঘুমের ওষুধ বেছে নেন। তবে এটা নিরাপদ কিনা তা বলা যাবে না।

চিকিৎসকদের ভাষ্যমতে, ঘুমের জন্য ওষুধের ওপর নির্ভারতা শরীরে বিপদ ডেকে আনে। নিয়ম ছাড়া ঘুমের ওষুধ খেলে, তা কর্টিসল হরমোন ক্ষরণে সহায়তা করার পাশাপাশি মেজাজ খিটখিটে হওয়াসহ অনেক সমস্যার কারণ হতে পারে। এ ছাড়াও ঘুমের ওষুধের ওপর নির্ভর হয়ে পড়ার একটা অভ্যাস তৈরি হয়ে যায়।

নিয়মিত ঘুমের ওষুধ খেলে শরীরে কী ধরনের ক্ষতি হতে পারে জেনে নিন-

মানসিক অবসাদ : নিয়মিত ঘুমের ওষুধ সেবনে মানসিক অবসাদ তৈরি হয়। শরীরে প্রয়োজনের বেশি কর্টিসল (হরমোন) ক্ষরিত (ক্ষরণ) হয়। যা মানসিক অবসাদের জন্য দায়ী।

আসক্তি : নিয়মিত ঘুমের ওষুধ সেবনে তা আসক্তিতে পরিণত হয়। যা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কখনই ঘুমের ওষুধ সেবন করা যাবে না।

মেজাজ খিটখিটে : দীর্ঘদিন ঘুমের ওষুধ সেবন করলে তা শরীরের সঙ্গে মেজাজ খিটখিটে করতে সাহায্য করে। যা শরীরের জন্য ক্ষতিকারক।

খাবারে অনীহা : নিয়মিত ঘুমের ওষুধ সেবনের ফলে একসময় খাবারের অনীহা তৈরি হয়। এর ফলে শরীর দুর্বল হয়ে যায়।

হজমের সমস্যা : ঘুমের ওষুধ দীর্ঘদিন সেবনের কারণে খাবার হজম হতে সমস্যা হয়।

ওষুধে অভ্যস্ততা : অনেকেই আছেন যারা চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই দীর্ঘদিন ঘুমের ওষুধ সেবন করেন। যা একটা সময়ে অভ্যাসে পরিণত হয়ে যায়। তখন ওষুধ ছাড়া একদমই ঘুম আসতে চায় না।

ঘুমের সমস্যায় কখন চিকিৎসকের কাছে যাবেন : কারও যদি সাত থেকে দশ দিন সঠিকভাবে ঘুম না হয়, সেক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ইত্তেফাক/আরএজে

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন