বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সার্জারির বিরুদ্ধে বলে বিপাকে জ্যাকলিন!

আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬:২২

ইদানিং হরহামেশায় তারকাদের প্লাস্টিক সার্জারির কথা শোনা যায়। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা-সামালোচনা কম হয় না। কসমেটিক্স সার্জারির বিরুদ্ধে বলতে গিয়ে এবার জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ নিজেই পড়ে গেলেন বিপাকে। কারণ নেটিজানরা এরই ভেতরে তত্ত্ব-তালাশ করে বের করেন জ্যাকলিন ফার্নান্দেজও তার ঠোঁট থেকে শুরু করে মুখাবয়ব কসমেটিক্স সার্জারি করেই পরিবর্তন করেছেন।

২০০৬ সাল। বিশ্ব-সুন্দরীর খেতাব জিতেছিলেন শ্রীলঙ্কার মডেল জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ। নিজের দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন তিনি গর্বের সঙ্গে।

জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ

সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার মঞ্চে যে ভাষণ দিয়েছিলেন তিনি, তার ভিডিও এখনও সমাজমাধ্যমে ঘুরে বেড়ায়। জ্যাকলিনকে সেখানে কসমেটিক সার্জারির বিরোধিতা করতে শোনা গিয়েছিল। তার মুখের আদলও তখন অনেকটাই আলাদা। নেটাগরিকদের নজরে আসে, আগে আর পরে জ্যাকলিনের মুখের কত ফারাক!

কিন্তু এ প্রসঙ্গে পুরোটাই অস্বীকার করে ফার্নান্দেজ বলেন, ‘কৃত্রিম সৌন্দর্যের কোনও মানে নেই। অস্ত্রপচার করে ভোল বদলানোর মতো কাজে কখনই প্ররোচনা দেওয়া উচিত নয়। ভিডিওতে জ্যাকলিনকে বলতে শোনা যায়, ‘আমি মনে করি, সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় কসমেটিক সার্জারি করে আসা মডেলদের অগ্রাধিকার দেওয়া ঠিক নয়। তা হলে স্বাভাবিক সৌন্দর্যের অবমাননা করা হয়। কৃত্রিম উপায়ে সৌন্দর্য বাড়িয়ে যদি কেউ প্রতিযোগিতায় যোগ দেন, তা হলে অন্য এক জন হীনম্মন্যতায় ভুগতে পারেন। সবার কি সামর্থ্য হয় অস্ত্রপচার করানোর? তবে কেন এই বিষয়টিকে উত্সাহ দেওয়া হবে?’

জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ

তবে যখন সকলে জ্যাকলিনের সার্জারি প্রসঙ্গে প্রশ্ন তুলেছেন। সে ব্যাপারে কোনো জবাব দিচ্ছেন না এই সুন্দরী।

ইত্তেফাক/বিএএফ