বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩, ৯ চৈত্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

অসহায় ২০ তরুণ-তরুণীর বিয়েতে ১০ হাজার অতিথি!

আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর ২০২২, ২১:০৪

নোয়াখালীর সেনবাগে দরিদ্র, এতিম ও দুঃস্থ পরিবারের ১০ তরুণীর সঙ্গে ১০ জন তরুণের বিয়ের আয়োজন করা হয়। শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলার অর্জুনতলা ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামে এই গণবিবাহ অনুষ্ঠিত হয়। 

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার এতিম ১০টি কন্যার নিজ খরচে গণবিবাহ দিয়েছেন শিল্পপতি টিম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বিজিএমই-এর পরিচালক সেনবাগের কৃতি সন্তান আবদুল্লাহ হীল রাকিব। 

এ উপলক্ষে শিল্পপতি আবদুল্লাহ হীল রাকিবের সেনবাগ উপজেলার ৫ নম্বর অজুনতলা ইউনিয়নের দৌলতপুর ভূঁইয়া বাড়িতে দুপুর ১২টার সময় ওই গণবিবাহ সম্পন্ন হয়। এ সময় অনুষ্ঠানের আয়োজক আবদুল্লাহ হীল রাকিব প্রতি বরকে নগদ ৫০ হাজার টাকা করে ও প্রতি কনেকে আধা ভরি করে স্বর্ণের চেইনসহ আনুসাঙ্গিক তুলে দেন। এর আগের দিন সাঁজানিগুলো বর ও কনের বাড়িতে পৌঁছে দেন অনুষ্ঠানের আয়োজক কমিটির সদস্যরা। বর ও কনেকে অনুষ্ঠানে আনতে মাইক্রোবাস এবং অতিথিদের আনতে পৃথকভাবে বাসের ব্যবস্থা ছিলো। তাই অনুষ্ঠানের বর ও কনে পক্ষের অতিথিদের অনুষ্ঠানে আসতে কোনো বেগ পেতে হয়নি। এর আগ থেকে প্রত্যেক দম্পতির সঙ্গে আসা মেহেমানরা মেজবানে অংশ নেয়। ওই মেজবানে গণবিবাহের বর ও কনে পক্ষের এবং এলাকার গণ্যমান্য দশ হাজার মানুষ মেজবানে অংশগ্রহণ করে। অনুষ্ঠানের আয়োজকরা আগে থেকে এসব অতিথিদের আমন্ত্রণ জানিয়ে ছিলেন। 

বিশিষ্ট শিল্পপতি ও টিম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং বিজিএমই এর পরিচালক আবদুল্লাহ হীল রাকিব গণমাধ্যমকে বলেন, আমি সব সময় সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য কিছু করার চেষ্টা করি। এরই ধারাবাহিকতায় নিজ খরচে সেনবাগ উপজেলার ও আশপাশের এলাকার এলাকার হত দরিদ্র, অসহায়, দুঃস্থ ও এতিম ১০টি কন্যার বিবাহ দেওয়ার উদ্যোগ নেই। 

তিনি আরও বলেন, ভবিষ্যতে অনুরূপ সামাজিক কাজকর্ম করার আগ্রহ রয়েছে। এর আগে ও বিগত করোনার সময়ে এ শিল্পপতি সেনবাগের অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী, গরু ও শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন।

ইত্তেফাক/পিও