শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নতুন সেনাপ্রধানের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই: ইমরান খান

আপডেট : ১৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:৫০

পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান জানিয়েছেন, বর্তমানে পাকিস্তানের নতুন সেনাপ্রধান জেনারেল সৈয়দ আসিম মুনিরের সঙ্গে তার দলের কোনো সম্পর্ক নেই। বুধবার (১৮ জানুয়ারি) বিবিসি উর্দুকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন। ডেইলি টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২৩ সালের এপ্রিলে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে দাবী করেন ইমরান খান। তিনি অভিযোগ করেছেন, সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) কামার জাভেদ বাজওয়া দেশ পরিচালনায় সরকারকে সহায়তা করছেন।

বর্তমানে পাকিস্তানের নতুন সেনাপ্রধান জেনারেল সৈয়দ আসিম মুনির

পিটিআই প্রধান দাবি করেন, প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফের নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার ব্যাপক দর কষাকষি ও সমঝোতার মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে। জোট সরকারের নেতারা নিজেদেরকে আইনের ঊর্ধ্বে রেখেছেন। তাদের বিরুদ্ধে কয়েক বছর আগে দায়ের করা দুর্নীতির মামলাগুলো খারিজ হয়ে গেছে। 

ইমরান জানান, ক্ষমতায় আসার পর বর্তমান সরকার ১ লাখ ১০ হাজার কোটি টাকার দুর্নীতির মামলা খারিজ করেছে। শেহবাজ শরীফ, নওয়াজ শরীফ, আসিফ জারদারি ও মরিয়ম নওয়াজ এরা সবাই খালাস পেয়েছেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফের নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার ব্যাপক দর কষাকষি ও সমঝোতার মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে।

পাকিস্তানের অর্থনৈতিক সংকটের জন্য বর্তমান সরকারকে দায়ী করে ইমরান জানান, তার দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা আগে কখনো এমন ছিল না। বস্তুনিষ্ঠ ও স্বচ্ছ নির্বাচনই এসব সমস্যার একমাত্র সমাধান বলে মনে করেন তিনি। 

চলমান অর্থনৈতিক সংকটের কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ইমরান জানান, কোনো বিনিয়োগকারী বা ব্যবসায়ী বর্তমান সরকারকে বিশ্বাস করে না। এমনকি বিদেশি বিনিয়োগকারীরাও তাদের বিশ্বাস করে না।

বস্তুনিষ্ঠ ও স্বচ্ছ নির্বাচনের জন্য তার দল দুইটি প্রাদেশিক পরিষদ, খাইবার পাখতুনখাওয়া ও পাঞ্জাবকে 'উৎসর্গ' করেছে।

ইমরান জানান, বস্তুনিষ্ঠ ও স্বচ্ছ নির্বাচনের জন্য তার দল দুইটি প্রাদেশিক পরিষদ, খাইবার পাখতুনখাওয়া ও পাঞ্জাবকে 'উৎসর্গ' করেছে। পিটিআই প্রধানও ইঙ্গিত দিয়েছেন, সরকার এই বছরের এপ্রিলে সাধারণ নির্বাচন করতে বাধ্য হবে।

ইত্তেফাক/ডিএস