শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নেটফ্লিক্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতার পদত্যাগ

আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:২১

ইউএস ভিত্তিক ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম ও প্রযোজনা সংস্থা নেটফ্লিক্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতা রিড হেস্টিংস প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) পদ থেকে পদত্যাগ করছেন। তিনি দুই দশক ধরে নেটফ্লিক্সের নেতৃত্ব দিয়েছেন। ইকোনোমিক টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।  

প্রতিবেদনে বলা হয়, নেটফ্লিক্সের সাফল্যে রিড হেস্টিংসের ভূমিকা রয়েছে। হেস্টিংস ব্লগ পোস্টে জানিয়েছেন, তিনি নির্বাহী চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন।

ইউএস ভিত্তিক ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম ও প্রযোজনা সংস্থা নেটফ্লিক্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতা রিড হেস্টিংস প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) পদ থেকে পদত্যাগ করছেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) নেটফ্লিক্স জানিয়েছে, গত বছর তাদের ২৩ কোটিরও বেশি গ্রাহক ছিল। এটি প্রত্যাশা ছাড়িয়ে গেছে। বিশেষ করে 'হ্যারি অ্যান্ড মেগান' ও 'ওয়েডনেসডে' সিরিজ নতুন দর্শকদের আকৃষ্ট করেছে। গত ৩ মাসে ৭৭ লাখ নতুন সদস্য পেয়েছে বলে জানিয়েছে নেটফ্লিক্স।

হেস্টিংসের দীর্ঘদিনের সহযোগী টেড সারানডোস ও গ্রেগ পিটার্স এখন নেটফ্লিক্স চালাবেন। দুইজনই ইতোমধ্যে কোম্পানির সিনিয়র এক্সিকিউটিভ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।

বিশেষ করে 'হ্যারি অ্যান্ড মেগান' ও 'ওয়েডনেসডে' সিরিজ নতুন দর্শকদের আকৃষ্ট করেছে।

গবেষণা প্রতিষ্ঠান থার্ড ফার্মের বিশ্লেষক জেমি লুমলি জানান, রিড হেস্টিংস তার বর্তমান ভূমিকা থেকে সরে যাওয়ায় নেটফ্লিক্সের ভবিষ্যৎ কৌশল নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠছে। তিনি মনে করেন, নতুন সহ-সিইও গ্রেগ পিটার্সকে উচ্চ-প্রোফাইল খরচ ব্যবস্থাপনা থেকে পাসওয়ার্ড শেয়ারিং এবং পরবর্তী স্ট্রেঞ্জার থিংস সিরিজ পর্যন্ত বড় সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

তবে নতুন সিইও গ্রাহক সংখ্যার দিক থেকে কোম্পানির শক্ত অবস্থান নিয়ে কাজ শুরু করবেন। কারণ, ২০২২ সালের শেষ তিন মাসে নেটফ্লিক্সের গ্রাহক বেড়েছে ৭৬ লাখ ৬০ হাজার, যা প্রত্যাশার চেয়েও বেশি। কোম্পানিটি এই তিন মাসে ৪৫ লাখ গ্রাহক বাড়াবে বলে আশা করেছিল।

২০২২ সালের শেষ তিন মাসে নেটফ্লিক্সের গ্রাহক বেড়েছে ৭৬ লাখ ৬০ হাজার, যা প্রত্যাশার চেয়েও বেশি।

এ নিয়ে কোম্পানিটির এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ২০২২ এর শুরুটা কঠিন ছিল। তবে শেষটা ভালো।

নেটফ্লিক্স ১৯৯৭ সালে মুভি ডিভিডি ডোর-টু-ডোর মেইলে পাঠানোর মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে। গ্রাহকরা তারপর ওয়েবসাইটে যান ও নির্দিষ্ট চলচ্চিত্রের ডিভিডি অর্ডার করবেন। নেটফ্লিক্স সেগুলো ডাকযোগে পাঠিয়ে দিত। 

নেটফ্লিক্স ১৯৯৭ সালে মুভি ডিভিডি ডোর-টু-ডোর মেইলে পাঠানোর মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে।

কিন্তু বর্তমান নেটফ্লিক্স গঠনের ধারণা কীভাবে এসেছে সে সম্পর্কে হেস্টিংস মাঝে মাঝে কথা বলেছেন। তিনি জানিয়েছিলেন, ব্লকবাস্টার নামের একটি দোকান থেকে ভিডিও ক্যাসেট ভাড়া করে ফেরত দিতে ভুলে যাওয়ার পর তাকে এক সময় বিশাল জরিমানা দিতে হয়েছিল। তখনই মাসিক খরচ দিয়ে ছবি দেখানোর চিন্তা মাথায় আসে তার।

যাইহোক, তার সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক র্যান্ডলফ অন্য কথা বলেছেন। তিনি জানান, ই-কমার্স কোম্পানি অ্যামাজনের অনুকরণে দুইজন মিলে নেটফ্লিক্স তৈরি করেন।

ইত্তেফাক/ডিএস