বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

আরব উপসাগরীয় কাপের চ্যাম্পিয়ন ইরাক

আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:৫২

আরব উপসাগরীয় কাপ অ্যাসোসিয়েশন ফুটবল (সকার) টুর্নামেন্টের ফাইনালে দীর্ঘ নাটকীয়তায় পূর্ণ ম্যাচে ওমানকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ইরাক।

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) ইরাকি জাতীয় দল ওমানি প্রতিপক্ষকে ৩-২ গোলে হারিয়ে জয় তুলে নেয়। এই জয়ের মধ্যদিয়ে ইরাক চতুর্থবারের মতো উপসাগরীয় কাপ শিরোপা জিতল।

ইরাক-ওমান ম্যাচটি ছিল টান টান উত্তেজনায় পূর্ণ। সংগৃহীত ছবি

খেলা শুরুর ২৪ মিনিটে ইরাকি মিডফিল্ডার ইব্রাহিম বায়েশ একটি গোল করে ইরাককে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেয়। এরপর ওমানি মিডফিল্ডার সালাহ আল-ইয়াহিয়াই পেনাল্টি কিকে গোল করে খেলা সমতায় নেন।

এরপর অতিরিক্ত সময়ে মাঠে নেমে ১১৬ মিনিটে ইরাকি মিডফিল্ডার আমজাদ আত্তওয়ান পেনাল্টি গোল করেন। এর তিন মিনিট পর ওমানি স্ট্রাইকার ওমর আল মালকি হেডারে গোল করেন।

খেলা তখন টান টান উত্তেনায়। শেষে ১২২ মিনিটের মাথায় অতিরিক্ত সময়ের দুই মিনিটে ইরাকি ডিফেন্ডার মানাফ ইউনিস শেষ গোলটি করেন। এই গোলটির মধ্যদিয়ে ইরাক চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব ছিনিয়ে নেয়।

শিরোপার লড়াইয়ে ইরান দল। সংগৃহীত ছবি

ইরাকি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের তথ্যমতে, এ টুর্নামেন্ট জেতার আগে ইরাকি জাতীয় দল তিনবার শিরোপা জিতেছিল- ১৯৭৯, ১৯৮৪ এবং ১৯৮৮ সালে। এছাড়া এবারের রানার্স-আপ ওমান ২০০৯ এবং ২০১৮ সালে, অর্থাৎ দুইবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। ইরাক জাতীয় দল শেষবার উপসাগরীয় কাপের ফাইনালে খেলেছিল ২০১৩ সালে বাহরাইনে অনুষ্ঠিত ২১তম টুর্নামেন্টে। আরব আমিরাত জাতীয় দল লায়ন্স অফ মেসোপটেমিয়ার বিরুদ্ধে ২-১ গোলে জয়লাভের পর শিরোপা জিতেছিল সেবার।

প্রসঙ্গত, ইরাক ও ওমানের মধ্যকার আরব উপসাগরীয় কাপের ফাইনাল ম্যাচ শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে স্টেডিয়ামে পদদলিত হয়ে দুইজন নিহতের ঘটনা ঘটে।

ইত্তেফাক/এসকে