শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

লিভারপুল-চেলসি ম্যাচে জিতেনি কেউ 

আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭:০৬

হাই ভোল্টেজ ম্যাচে শনিবার (২১ জানুয়ারি) ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে লিভারপুল ও চেলসির মধ্যকার ম্যাচে জিততে পারেনি কেউ। গোলশূন্য ড্র হওয়া ম্যাচটিতে কোন দলই জিততে না পারায় শীর্ষ চারের লড়াইয়ে ফিরে আসার ক্ষেত্রে আবারও হোঁচট খেল তারা। এদিকে ক্রিস্টাল প্যালেসের সঙ্গে আরও একটি গোলশূন্য ড্র হওয়ায় টেবিলের তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে নিউক্যাসেল।

গত মৌসুমের লিগ ও এফএ কাপ ফাইনালের পুনরাবৃত্তি যেন কাল মাঠে দেখা দিয়েছিল। এফএ কাপের ফাইনালে নির্ধারিত সময়ে ম্যাচ গোলশূন্য ড্র থাকার পর পেনাল্টিতে লিভারপুল জয়ী হয়। শনিবার (২১ জানুয়ারি) এনফিল্ডে ডেডলক ভাঙ্গতে ব্যর্থ হয় উভয় দল। এই ড্রয়ে শীর্ষ চারের অবস্থান থেকে ১০ পয়েন্টের সুস্পষ্ট ব্যবধানে পিছিয়ে রয়েছে লিভারপুল ও চেলসি।

এনফিল্ডে ম্যাচের শুরুতেই চেলসি একটি বল জালে জড়িয়েছিল। কিন্তু কেই হাভার্টজের গোলটি ভিএআর প্রযুক্তি অফসাইডের কারণে বাতিল করে দেয়। দ্বিতীয়ার্ধে কাল সফরকারী চেলসির হয়ে অভিষেক হয়েছে ইউক্রেনিয়ান উইঙ্গার মিখাইলো মাড্রিচের। গত সপ্তাহে শাখতার দোনেস্ক থেকে ১০০ মিলিয়ন ইউরোতে চেলসিতে যোগ দিয়েছেন মাড্রিচ।

জার্গেন ক্লপ স্বীকার করেছেন ম্যানেজার হিসেবে হাজারতম ম্যাচটি হয়তো তিনি স্মরণীয় করে রাখতে পারলেন না। কিন্তু আগের ৯৯৯টি ম্যাচেও এমন পরিস্থিতি অনেকবারই হয়েছে। তবে অক্টোবরের পর প্রথমবারের মত প্রিমিয়ার লিগে কোন গোল হজম না করায় ক্লপ সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। এ সম্পর্কে লিভারপুল বস ক্লপ বলেন, ‘গোলশূন্য ড্র হওয়াতে আমি সন্তুষ্ট। কারণ এই ধরনের পরিস্থিতি আমাদের মেনে নিতে হবে।’

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের থেকে দুই পয়েন্ট এগিয়ে যাবার সুযোগ হাতছাড়া করেছে নিউক্যাসল। ম্যাগপাইরা গোল ব্যবধানে অবশ্য ইউনাইটেডকে পিছনে ফেলেছে। এ নিয়ে লিগে টানা ১৫ ম্যাচে তারা অপরাজিত আছে যা তাদের ক্লাব রেকর্ড। নিউক্যাসল বস এডি হোয়ে বলেছেন, ‘প্রতি সপ্তাহেই আমরা একটু একটু করে নিজেদের এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। যেভাবে মাঠে খেলোয়াড়রা খেলছে তাতে আমি গর্বিত।’ 

শনিবার (২১ জানুয়ারি) ম্যাচের প্রায় বেশীরভাগ সময়ই আধিপত্য ধরে রাখে নিউক্যাসল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে বদলি খেলোয়াড় জিন-ফিলিপ মাটেটার শট দুর্দান্ত দক্ষতায় গোলরক্ষক নিক পোপ রুখে না দিলে প্যালেস হয়তো এগিয়ে যেতে পারতো। 

 

 

ইত্তেফাক/জেডএইচ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন