শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০২৩, ১৭ চৈত্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

চোখের জলে হবে করোনা শনাক্ত

আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২:১৮

গোটা বিশ্ব ২০২০ সালে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সম্মুখীন হয়েছিল। করোনাভাইরাসের কবলে পড়ে মৃত্যু হয়েছিল লক্ষ লক্ষ মানুষের। সেই দুঃস্বপ্ন কাটতে সময় লেগেছিল প্রায় দুই বছর। তবে এখনও পর্যন্ত করোনার যে কোন অস্তিত্ব বিশ্বে নেই একথা নিশ্চিত ভাবে বলা যায় না। কিন্তু স্বস্তির বিষয় হল করোনা বর্তমানে স্তিমিত। 

এই ভয়ঙ্কর রোগের ব্যাপারে গবেষণা বন্ধ করেননি গবেষকরা। সেই গবেষণা চালাতে গিয়েই অভিনব পদ্ধতি সামনে আনলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গবেষকরা। তাদের দাবি, এবার চোখের জলের নমুনা  সংগ্রহ করে তার পরীক্ষার মাধ্যমে করোনা শনাক্তকরণ করা সম্ভব।

আরটিপিসিআর টেস্টে সাধারণত রোগীর নাকের ভেতর থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। তবে এই নমুনা সংগ্রহের বিষয়টি বেশ খানিকটা অপ্রীতিকর এবং অস্বস্তিজনক। তাই তার বিকল্প হিসেবে চোখের জলের নমুনা সংগ্রহ করা যেতে পারে। জার্নাল অফ ক্লিনিক্যাল মেডিসিনে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের নমুনা বিশ্লেষণ করতে গিয়ে এই নতুন পদ্ধতি আবিষ্কার করা হয়েছে। ওই রিপোর্টটা আরও বলা হয়েছে, নাকের ভেতর থেকে নমুনা সংগ্রহ করতে গেলে রোগীকে অস্বস্তিতে পড়তে হয়। কিন্তু চোখের জলের নমুনা সংগ্রহ করতে গেলে কোন সমস্যাই হবে না।

না ব্যথা, না অস্বস্তি। শুধুমাত্র চোখের জল পাওয়া গেলেই জানা যাবে সেই ব্যাক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন কিনা। আর এটি নাকের  ভেতর থেকে নমুনা সংগ্রহ করার তুলনায় অনেকটাই সহজ পদ্ধতি বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। এই পদ্ধতি আবিষ্কারের জন্য ৬১ জন রোগীকে বাছাই করা হয়েছিল। তাদের আরটিপিসিআর টেস্ট অর্থাৎ নাকের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। সেখানে দেখা যায় ৩৩ জন পজিটিভ এবং ২৮ জন করোনা নেগেটিভ। ওই ৬১ জন রোগীরই আবার চোখের জলের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাতেও সফলতা মেলে।

বিখ্যাত ল্যানসেট জার্নালে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী যারা প্রথমবার কোভিডে সংক্রামিত হয়েছেন এবং সুস্থ হয়ে ওঠার পর দ্বিতীয় বার আবার সংক্রামিত হয়েছেন, তাদের মৃত্যুর আশঙ্কা প্রায় ৪৪ শতাংশ কমে যায়।

ইত্তেফাক/এএইচপি