রোববার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

মাহির অভিযোগ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে জিএমপি কমিশনার

আপডেট : ১৮ মার্চ ২০২৩, ১২:৩৮

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি ঘুষসহ যেসব অভিযোগ করেছেন, সে বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন জিএমপি কমিশনার মোল্যা নজরুল ইসলাম। শনিবার (১৮ মার্চ) ১২টায় জিএমপি সদর দপ্তরের কনফারেন্স রুমে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার (১৭ মার্চ) রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানিয়েছে জিএমপি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘মাহিয়া মাহি গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ‍ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, বিভ্রান্তিমূলক ও মানহানিকর তথ্য ফেসবুক লাইভে শেয়ার করেছেন। উদ্ভূত পরিস্থিতির ওপর শনিবার সংবাদ সম্মেলন করা হবে।’

এর আগে স্বামীর সঙ্গে ওমরাহ পালন করতে যাওয়া মাহি সৌদি আরবের মক্কা শহর থেকে শুক্রবার ভোরে ফেসবুক লাইভে আসেন। লাইভে মাহিয়া মাহি অভিযোগ করে বলেন, তার স্বামী ব্যবসায়ী-আওয়ামী লীগ নেতা রকিব সরকারের গাড়ির শোরুমে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। ওই ফেসবুক লাইভে পুলিশের বিরুদ্ধে 'ঘুষ নিয়ে প্রতিপক্ষকে জমি দখল দেওয়ার চেষ্টা'রও অভিযোগ করেন তিনি। এদিকে ফেসবুক লাইভে মানহানিকর তথ্য প্রচারের অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মাহি ও তার স্বামী রকিব সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করে পুলিশ।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) রাতে গাজীপুর মহানগর পুলিশের (জিএমপি) বাসন থানায় মামলাটি করা হয়। মামলায় প্রধান আসামি রকিব সরকার এবং দ্বিতীয় আসামি মাহিয়া মাহি।

মামলার বিষয়ে মাহি বলেন, আমার স্বামীসহ আমার বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়েছে। একটি হয়েছে ওখানে মারামারির ঘটনায় অন্যটি হয়েছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে।

এর আগে ফেসবুক লাইভে মাহিকে নিয়ে রকিব সরকার বলেন, গাজীপুর মহানগরের ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজের পূর্ব পাশে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশে ‘সনিরাজ কার প্যালেস’ নামে তার গাড়ির একটি শোরুম রয়েছে। স্থানীয় ইসমাইল হোসেন ও মামুন সরকার লোকজন নিয়ে শুক্রবার ভোর পাঁচটার দিকে হামলা চালিয়ে ওই শোরুমে ব্যাপক ভাঙচুর করেন। হামলাকারীরা শোরুমের গেট ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে বিভিন্ন আসবাব, দরজা–জানালার কাচ, টেবিল–চেয়ার ভাঙচুর এবং শোরুমের সাইনবোর্ড খুলে নেয়। অফিস কক্ষ তছনছ করে এবং টাকাপয়সা লুট করে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে রকিব সরকারের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে গেলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।

লাইভে রকিব সরকার অভিযোগ করেন, জিএমপি পুলিশ দেড় কোটি টাকা ঘুষ নিয়ে ইসমাইলের পক্ষে জমি দখল করে দিতে চেষ্টা করছে। এ বিষয়ে ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘জমি ছেড়ে দেওয়ার বিনিময়ে রকিব সরকার আমার কাছে এক কোটি টাকা দাবি করেছিলেন। যেখানে এক কোটি টাকা দিলে সমস্যা সমাধান হয়, সেখানে কেনো আমি পুলিশকে দেড় কোটি টাকা দেবো? পুলিশ আমার পক্ষে থাকলে আজ আমি কেনো মার খেলাম, কেনো আমি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে গিয়ে অভিযোগ দিলাম।’

রকিব সরকার ও মাহিয়া মাহি পবিত্র ওমরাহ পালনের জন্য বর্তমানে সৌদি আরব অবস্থান করছেন। শনিবার (১৮ মার্চ) সস্ত্রীক তিনি দেশে ফিরবেন। মাহির ভাষ্য, বাসন থানার একটি টিম এয়াপোর্টের দিকে রওনা দিয়েছে। তারা বিমানবন্দরে নামার পর তাদের গ্রেপ্তার করা হতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা করছেন।

ইত্তেফাক/আর

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন