বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

বর্ণাঢ্য আয়োজনে লক্ষ্যের সপ্তম বর্ষপূর্তি উদযাপিত

আপডেট : ১৯ মার্চ ২০২৩, ২৩:০৭

বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপিত হলো লক্ষ্য নিউজ প্রেজেন্টেশন একাডেমির সপ্তম বর্ষপূর্তি। শনিবার (১৮ মার্চ) রাজধানীর বেইলি রোডে বাংলাদেশ মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহিম অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হয়।

অনুষ্ঠানে লক্ষ্য নিউজ প্রেজেন্টেশন একাডেমি থেকে কোর্স শেষ করে সম্প্রতি বিভিন্ন সম্প্রচারমাধ্যমে নিউজ প্রেজেন্টার ও সাংবাদিক হিসেবে সুযোগ পাওয়া ৬৫ জন প্রশিক্ষণার্থীকে দেওয়া হয় রংধনু গ্রুপ প্রেজেন্টস লক্ষ্য একাডেমি অ্যাওয়ার্ড-২০২৩, পাওয়ার্ড বাই গৌরব জুয়েলার্স।

এ ছাড়া সংবাদ উপস্থাপনা ও সাংবাদিকতার প্রশিক্ষণে গত ২৫ বছর বিশেষ অবদানের জন্য বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জার্নালিজম অ্যান্ড ইলেকট্রনিক মিডিয়ার (বিজেম) নির্বাহী পরিচালক মির্জা তারেকুল কাদেরকে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়।

নিউজ প্রেজেন্টারদের মধ্যে প্রথম বিদেশের মাটিতে ‘আয়রনম্যান’ খেতাব অর্জনকারী ডাক্তার সাকলায়েন রাসেলকে অ্যাপ্রিসিয়েশন অ্যাওয়ার্ডে সম্মানিত করা হয়।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে অংশ নেন গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব আব্দুন নুর তুষার, শামসুদ্দিন হায়দার ডালিম, অ্যাসোসিয়েট প্রেস’র (এপি) ব্যুরো চিফ জুলহাস আলম, বিবিসির সাংবাদিক শারমিন রমা, পাওয়ার অব শি’র প্রজেক্ট চিফ সাবিনা স্যাবি, সংবাদ উপস্থাপক মাহবুব হাসানসহ বহু নিউজ প্রেজেন্টার। এ সময় তারা লক্ষ্যের প্রতি শুভকামনা ও অনুষ্ঠানটির জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

অতিথিরা বলেন, একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে লক্ষ্যের যে পথচলা তা প্রমাণিত। একাগ্রতা থাকায় প্রতিষ্ঠানটি আজ সারা বাংলাদেশে সমাদৃত। এর পেছনে যে সময় ও শ্রম প্রতিষ্ঠাতারা দিয়েছেন তা ঈর্ষনীয়। নিউজ প্রেজেন্টেশনের জন্যই শুধু না, লক্ষ্য সাংবাদিকতা নিয়েও যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, তা অনুকরণীয়। সামনের দিনগুলোয় সাংবাদিকতা বা সংবাদ উপস্থাপনা একীভূত হয়ে যাচ্ছে, এ প্রতিষ্ঠানটিও সে ধারায় পরিচালিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তারা।

অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে লক্ষ্যের এ আয়োজনের জন্য সাধুবাদ জানান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আজিজুস সামাদ আজাদ ডন। এ সময় তিনি বাঙালি জাতির সত্ত্বা অর্থাৎ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকেও স্মরণ করেন। একজন পথপ্রদর্শক হিসেবে তাকে সব সময় স্মরণ করতে অনুষ্ঠানের আগতদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের পরিচালক ও ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড ইউনিভার্সিটির (আইএসইউ) বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য এইচ টি এম কাদের নেওয়াজ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে বলেন, লক্ষ্যের প্রতিষ্ঠাতা একটি লেখায় শিরোনাম দিয়েছিলেন ‘শিকড় থেকে শিখরে’। লেখাটি ছিল গত সাত বছর আগে। এই সাত বছরে তিনি ও তার প্রতিষ্ঠান শিকড় থেকে শিখরের প্রায় কাছাকাছি পৌঁছে গেছেন। এর পেছনে ছিল কঠিন পরিশ্রম। তাই আগামীতে যারা সংবাদ উপস্থাপনা পেশায় আসতে চান, তাদের একাগ্রচিত্তে পরিশ্রমের আহ্বান জানান তিনি।

অতিথিদের বক্তব্য ও অ্যাওয়ার্ড প্রদান শেষে লক্ষ্য পরিবারের সদস্যদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এ আয়োজনের সহযোগিতায় ছিল ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড ইউনিভার্সিটি (আইএসইউ), জিএমএস কম্পোজিট নিটিং, উডপেকার, টরেভিনো, শশী হাসপাতাল, তানিশা তুবা গ্রুপ ও রেডপার্ক। অনুষ্ঠানের মিডিয়া পার্টনার ছিল সময় টেলিভিশন ও প্রতিদিনের বাংলাদেশ।

লক্ষ্যের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রাইসুল হক চৌধুরী হক বলেন, সংবাদ উপস্থাপনার বাংলাদেশের প্রথম চর্চা কেন্দ্র আমাদের লক্ষ্য নিউজ প্রেজেন্টেশন একাডেমি। এখান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ২৫০ জনের বেশি প্রশিক্ষণার্থী বিভিন্ন সম্প্রচার মাধ্যমে কাজ করছে। টেলিভিশনের আদলে সম্প্রচার সাংবাদিকতা ও সংবাদ উপস্থাপনার ওপর পেশাদারিত্বের সঙ্গে বছরে আমরা ১০০ জনকে প্রশিক্ষণ দিই। সামনে আমাদের আরও প্রশিক্ষণার্থী বিভিন্ন টেলিভিশন মিডিয়ায় কাজের সুযোগ পাবে। আমাদের লক্ষ্য অনেক বড়। সবাইকে পাশে নিয়েই সে লক্ষ্যে পৌঁছাতে চাই।

ইত্তেফাক/ইআ