রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

বিদ্যালয়ের জমি দখলের অভিযোগ, শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

আপডেট : ২০ মার্চ ২০২৩, ২০:৩১

গাইবান্ধা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭৩ শতক জমি দখলের অভিযোগে মানববন্ধন করেছে প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীসহ সাধারণ জনগণ। সোমবার (২০ মার্চ) জেলা শহরের ডিবি রোডে এ মানববন্ধন করা হয়। পরে বিদ্যালয়ের জমি রক্ষায় জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি হস্তান্তর করা হয়। 
    
মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি সরকারিকরণের আগে এআরএম হাফিজুর রহমান নামে একজন সহকারী শিক্ষক ছিলেন। অনৈতিক আচরণের কারণে ১৯৬০ সালের ১৭ জানুয়ারি তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। বরখাস্ত হওয়ার পর ওই শিক্ষক তার বকেয়া বেতন ৫ হাজার ৮৫০ টাকা দাবি করে বিদ্যালয়ের ৭৩ শতক জমি কৌশলে নিলামে তুলে নিজেই মালিক হবার অপচেষ্টা করেন। একপর্যায়ে ওই শিক্ষক মামলাও করেন।

বক্তারা আরও বলেন, তৎকালীন জেলা প্রশাসক বিদ্যালয়ের পক্ষে এসব মামলায় হাইকোর্টে আপিল করেন। ২০০৯ সালের ৪ জুন আপিল বিভাগ গাইবান্ধা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের পক্ষে রায় দেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে হাফিজুর রহমান আদালতে আর কোনো চ্যালেঞ্জ করেননি। এরই মধ্যে ২০১৮ সালের ২৬ মে তার মৃত্যু হয়। কিন্তু তারপরও তার ওয়ারিশ নামধারী ও তাদের সহযোগীরা বিদ্যালয়ের জমি দখলের পাঁয়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। 

এ সময় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন গাইবান্ধা পৌর মেয়র মো. মতলুবর রহমান, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আহসান হাবিব রাজীব, বীর মুক্তিযোদ্ধা ময়নুল ইসলাম রাজা, অ্যাডভোকেট সেকেন্দার আযম আনাম, প্রাক্তন শিক্ষার্থী আবুল হাসনাত বুলু, জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক জনিসহ আরও অনেকে।

ইত্তেফাক/এবি/পিও