শুক্রবার, ০২ জুন ২০২৩, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

অভিযুক্ত হয়ে বিস্মিত ট্রাম্প, লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার

আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০২৩, ১৮:০৬

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সাবেক পর্ন তারকার সাথে সম্পর্কের কথা ধামাচাপা দিতে ঘুষ দেওয়ার মামলায় অভিযুক্ত হওয়ার পর দোষ স্বীকার না করে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছেন।

প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের কোন প্রেসিডেন্ট ফৌজদারি অভিযোগে অভিযুক্ত হলেন। অভিযুক্ত ট্রাম্প (৭৬) মঙ্গলবার আদালতে উপস্থিত হয়ে আত্মসমর্পন করবেন বলে জানা গেছে। নিয়ম অনুযায়ী এ সময়ে ট্রাম্পের হাতে হাতকড়া পরানো হবে না বলে তার অন্যতম এটর্নী জো টাকোপিনা জানিয়েছেন।

তবে মঙ্গলবার শুনানির আগে ট্রাম্পের আঙুলের ছাপ ও ছবি নথিভুক্ত করা হবে। হাতকড়া পরানো না হলেও আদালত এলাকায় তাঁকে ঘিরে থাকবেন শতাধিক এফবিআই সদস্য।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

জো টাকোপিনা বলেছেন, ট্রাম্প কোনো অপরাধ করেননি, তাই অপরাধ স্বীকারের প্রশ্নই আসে না।

ফ্লোরিডার মার-এ-লাগোতে বর্তমানে অবস্থান করছেন ট্রাম্প। অভিযুক্ত হওয়ার খবরে তিনি প্রথমে বিস্মিত হন। এ খবর জানিয়েছেন তার আইনজীবী। 

তিনি আরো বলেছেন, কিন্তু প্রাথমিক ধাক্কা সামলিয়ে এখন ট্রাম্প লড়াই চালিয়ে যেতে প্রস্তুত।

এদিকে আইনি বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, এই মামলায় শেষ পর্যন্ত ট্রাম্পের কারাগারে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। বরং জরিমানা হওয়ার সম্ভবনা আছে। তবে দোষী সাব্যস্ত হলেও নির্বাচন করতে পারবেন তিনি।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফাইল ছবি।

উল্লেখ্য, সাবেক পর্নো তারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলস দাবি করেন ২০০৬ সালে তার সাথে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এর ১০ বছর পর ২০১৬ সালে ট্রাম্প যখন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করবেন তখন স্টর্মি ড্যানিয়েলস মিডিয়ার কাছে সম্পর্কের ব্যাপারে মুখ খুলতে চান। মুখ বন্ধ করাতে আইনজীবীর মাধ্যমে ড্যানিয়েলসকে ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দেন ট্রাম্প। এভাবে অর্থ দেয়া আইনের দৃষ্টিতে অবৈধ নয়। 

কিন্তু বিপত্তি বাধার কারণ, ট্রাম্প ওই ১ লাখ ৩০ হাজার ডলারকে আইনি খরচ হিসেবে দেখিয়েছেন; ফলে তার বিরুদ্ধে ব্যবসায়িক হিসাব জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনা ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ঠিক আগে আগে ঘটায় নির্বাচনি আইন ভঙ্গেরও অভিযোগ উঠেছে।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

এ প্রেক্ষিতে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হবে কিনা সে সিদ্ধান্ত নেয়ার দায়িত্বটি ছিল নিউইয়র্ক সিটির ডিস্ট্রিক্ট অ্যার্টনি অ্যালভিন ব্র্যাগের ওপর। 

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে তদন্তের জন্যে তিনি গ্রান্ড জুরি গঠন করেন। বৃহস্পতিবার এ জুরি ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের সিদ্ধান্ত জানায়। তবে তার বিরুদ্ধে কি কি অভিযোগ আনা হয়েছে তা প্রকাশ করা হয়নি। কারন আদালতে বিচারপতি ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে না পড়ে শোনানো পর্যন্ত এ গুলো প্রকাশ করা হবে না। 

ইত্তেফাক/এএইচপি