রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

‘ব্যাপক তৎপরতার’ উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক স্থাপনায়

আপডেট : ০২ এপ্রিল ২০২৩, ১৫:৪৪

উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক অস্ত্রভাণ্ডারকে আরও সমৃদ্ধ করা হবে। এর জন্য বোমার জ্বালানি উৎপাদন বাড়াতে শীর্ষ নেতার নির্দেশের পর উপগ্রহের ছবিতে দেশটির প্রধান পারমাণবিক স্থাপনায় ব্যাপক তৎপরতা দেখা গেছে। শনিবার এ তথ্য দেয় যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এক থিঙ্ক ট্যাঙ্ক। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্স। 

উত্তর কোরিয়ার কার্যকলাপের ওপর নজর রাখা ওয়াশিংটনভিত্তিক ৩৮ নর্থ শনিবার জানিয়েছে, ৩ ও ১৭ মার্চের উপগ্রহের ছবির ওপর ভিত্তি করে তারা যে তৎপরতা শনাক্ত করেছে, তাতে পিয়ংইয়ং ইয়ংবিয়ন কেন্দ্রে একটি পরীক্ষামূলক লাইট ওয়াটার রিয়েকটরের (ইএলডব্লিউআর) কাজ শেষ করে এনেছে এবং সেটিকে ব্যবহার উপযোগীতে রূপান্তর করছে বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

তাদের প্রতিবেদন আরও বলছে, ইয়ংবিয়নে যে একটি ৫ মেগাওয়াটের চুল্লি চালু আছে। উপগ্রহের ছবিতে দেখা গেছে, ইএলডব্লিউআরের চারপাশে সহায়ক স্থাপনার নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে । এর পাশাপাশি চুল্লির কুলিং সিস্টেম থেকে পানি নির্গত হওয়ার বিষয়টিও শনাক্ত করা গেছে।

ইয়ংবিয়নের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ কেন্দ্রের সক্ষমতা বাড়াতে কেন্দ্রের আশপাশে নতুন নির্মাণকাজ শুরুর চিত্রও ছবিতে এসেছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। 

এছাড়া ৩৮ নর্থের প্রতিবেদিনে বলা হয়েছে, “পারমাণবিক অস্ত্রভাণ্ডার বিস্তৃত করতে দেশের পারমাণবিক জ্বালানি বাড়াতে কিম জং উনের নির্দেশনার প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে এসব কর্মকাণ্ডে।” 

মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়া তাদের নতুন, ছোট পারমাণবিক ওয়ারহেড বিশ্বকে দেখিয়েছে; দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধমহড়ার মাত্রা বাড়ানোর নিন্দা জানানোর পাশাপাশি নিজেদের ভাণ্ডার সমৃদ্ধ করতে পারমাণবিক অস্ত্র নির্মাণে উপযোগী পদার্থের উৎপাদন বৃদ্ধির অঙ্গীকার করেছে।

দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম বলেছে, কিম পারমাণবিক অস্ত্রভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করতে ‘দূরদর্শী উপায়ে’ পারমাণবিক অস্ত্র নির্মাণে ব্যবহৃত সামগ্রী দ্রুতগতিতে উৎপাদনের নির্দেশ দিয়েছেন।

উত্তর কোরিয়া সাম্প্রতিক সময়ে যেসব ছোটখাট অস্ত্রের প্রদর্শনী করেছে, তাতে বসানোর উপযোগী ক্ষুদ্রাকৃতির পারমাণবিক ওয়ারহেড তারা এরই মধ্যে বানাতে সক্ষম হয়েছে কিনা তা স্পষ্ট নয়।

২০১৭ সালের পর প্রথমবার দেশটি যদি কোনো পারমাণবিক পরীক্ষা করতে যায়, তাহলে ওই ধরনের ওয়ারহেড ঠিকঠাক বসাতে পারাটাই তাদের অন্যতম মুখ্য উদ্দেশ্য থাকবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

পিয়ংইয়ং ২০টির মতো পারমাণবিক ওয়ারহেড একত্রিত করতে পেরেছে এবং আনুমানিক ৪৫ থেকে ৫৫টি পারমাণবিক ডিভাইস বানানোর জন্য পর্যাপ্ত উপকরণ অর্জন করেছে বলে গত বছর স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (এসআইপিআরআই) এক প্রতিবেদনে ধারণা দেওয়া হয়েছিল।

উত্তর কোরিয়া যেকোনো সময় তাদের পারমাণবিক পরীক্ষা ফের শুরু করতে পারে বলে দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র গত বছরের শুরু থেকেই বলে আসছে।

ইত্তেফাক/এফএস