মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

দুর্গম পাহাড়ে পানি সমস্যা নিরসনে ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট স্থাপন

আপডেট : ২৩ মে ২০২৩, ১২:৩৭

পাহাড়ের দুর্গম এলাকায় জনসাধারণের পানি সরবরাহ নিশ্চিত করতে রুরাল পাইপ ওয়াটার সাপ্লাই প্রকল্পের মাধ্যমে ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট স্থাপনের কাজ শুরু করেছে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ। স্থানীয় সরকার বিভাগের সমগ্র দেশে নিরাপদ পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় ভূ-উপরিস্থ পরিশোধনাগার নির্মাণ কাজ হিসেবে পার্বত্য জেলা পরিষদের আওতাধীন রাঙ্গামাটি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের মাধ্যমে পাহাড়ি দুর্গম এলাকায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। 

পর্যায়ক্রমে প্রকল্পটি দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় কার্যকর করা গেলে সেসব এলাকায় বসবাসরত সাধারণ মানুষের পানি সমস্যা সমাধানসহ একটি প্রকল্পের মাধ্যমে কমিউনিটি ভিত্তিক ২-৩ শতাধিক মানুষ উপকৃত হবে বলে জানিয়েছেন রাঙ্গামাটি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী সুব্রত বড়ুয়া।

তিনি জানান, সমতল এবং পার্বত্য এলাকায় প্রাকৃতিক পরিবেশের অবস্থানগত বিভিন্ন কারণে এ অঞ্চলে জনসাধারণের পানি সরবরাহের বিষয়টি নিশ্চিত ও সহজ করতে রাঙ্গামাটি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের পক্ষ থেকে ১০টি প্রকল্প পাঠানো হয়েছে। তারমধ্যে একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য আমরা প্রায় কোটি টাকা বরাদ্দ পেয়েছি এবং এর মাধ্যমে প্রকল্পটি বর্তমানে বরকল উপজেলায় বাস্তবায়নাধীন বলে জানান তিনি। 

রাঙ্গামাটি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের তত্বাবধানে বরকল উপজেলায় ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট এর মাধ্যমে প্রায় ৪৭ হাজার লিটার ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন প্রকল্পের কাজটি জুন মাসের মধ্যেই বাস্তবায়িত হবে বলে জানিয়ে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী সুব্রত বড়ুয়া আরো বলেন, ‘এ প্রকল্পটি অত্যন্ত পরিবেশ বান্ধব এবং একটি প্রকল্পের মাধ্যমে কমিউনিটি ভিত্তিক এক একটি এলাকায় প্রায় ২-৩ শতাধিক মানুষ উপকৃত হওয়ার পাশাপাশি অনেক মানুষকে একই ছাতার নিচে আনা যাবে।’ তাই এ প্রকল্পটি জেলার প্রতিটি উপজেলার দুর্গম এলাকায় বাস্তবায়ন করা গেলে সাধারণ মানুষ উপকৃত হবে বলে জানান তিনি। 

এ বিষয়ে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ সদস্য ও বরকল উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক সবির কুমার চাকমা বলেন, ‘পার্বত্য অঞ্চলের দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় সকল স্থানে পানির স্তর খুঁজে পাওয়া খুবই কঠিন একটি বিষয়। এখানে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অনেক রিংওয়েল, ডিপ-টিউবওয়েল বসানো হলো শুষ্ক মৌসুমে পানি পাওয়া খুবই কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়ে।’

ইত্তেফাক/এসজেড