শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

জেপির নির্বাচনি পথসভা

ভাণ্ডারিয়া পৌর নির্বাচনে কালো টাকা ছড়ানোর অভিযোগ

আপডেট : ১৭ জুলাই ২০২৩, ১২:৫৮

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া পৌরসভা নির্বাচন সামনে রেখে রবিবার দুপুরে উপজেলা বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন কলেমা চত্বরে জাতীয় পার্টি-জেপির বাইসাইকেল প্রতীকের নির্বাচনি পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তারা পৌরসভা নির্বাচনে কালো টাকা ছড়িয়ে ভোটকে প্রভাবিত করার অভিযোগ এনে বলেন, এলাকায় বহিরাগত নারী ও সন্ত্রাসীদের এনে পরিবেশ বিনষ্ট করা হচ্ছে। সরকার প্রধান, প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ রাষ্ট্রীয় শীর্ষপদস্থরা যে কোনো মূল্যে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন। কিন্তু ভাণ্ডারিয়ায় ক্ষমতাসীন দলের কিছু বিপদগামী নেতাকর্মী দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সর্বহারা দলের সাজাপ্রাপ্তদের ও চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের ভাড়া করে এনে ভোটকে প্রভাবিত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হচ্ছে। মাদক বিক্রির টাকা ছড়িয়ে এলাকার যুব সমাজকে নষ্ট করা হচ্ছে। সভা থেকে এসব প্রতিহত করার ঘোষণা দেওয়া হয়।

জেপির মেয়র প্রার্থী মো. মাহিবুল হোসেন মাহিমের এ নির্বাচনি পথসভায় এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ও বিপুলসংখ্যক নারী ভোটার উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা জেপির সিনিয়র সহ-সভাপতি গোলাম সরোয়ার জোমাদ্দারের সভাপতিত্বে সভায় বক্তৃতা করেন ওয়ার্কার্স পার্টির পিরোজপুর জেলা সভাপতি খান মো. রুস্তুম আলী, পৌর জেপির সভাপতি আহসানুল কিবরিয়া ফরিদ, উপজেলা যুব সংহতির সদস্য সচিব মামুনুর রশীদ, ভিটাবাড়িয়া ইউপির সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হোসেন মাস্টার প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, ইশতেহারের নামে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে নানা প্রলোভন দেখাচ্ছেন। তাদের ইশতেহারে পৌর কর মওকুফসহ নানা প্রলোভন দেখানো হচ্ছে। অথচ এলাকার মানুষের ভোগান্তি লাঘবে পৌরকর কমানোসহ ইজারাদারদের জিম্মি দশা থেকে মুক্তিতে জাতীয় পার্টি-জেপির চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি নানা ভূমিকা রেখেছেন, যা প্রমাণিত।

বক্তারা আরো বলেন, জেপির বাইসাইকেল প্রতীকের মেয়র প্রার্থী মো. মাহিবুল হোসেন মাহিম ইতিপূর্বে বিভিন্ন সময় গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। কোথাও তার বিরুদ্ধে কোনো অনিয়ম বা দুর্নীতির অভিযোগ নাই। যারা পৌরসভার টাকা আত্মসাত্ করেছে এবং হিসাব মিলাতে পারেনি তারা দীর্ঘদিন নির্বাচন বন্ধ রাখার পাঁয়তারায় লিপ্ত ছিল। সব ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে পৌরসভা নির্বাচনের তপশিল হওয়ায় তারা এখন পাগলের প্রলাপ বকছেন। ভাণ্ডারিয়াকে কোনো মাদক বিক্রেতার হাতে তুলে দেওয়া যাবে না উল্লেখ করে বক্তারা আগামী ১৭ জুলাইয়ের নির্বাচনে বাইসাইকেলকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভাণ্ডারিয়া জেপির সহ-সভাপতি ও গৌরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান চৌধুরী, উপজেলা জেপির সাংগঠনিক সম্পাদক খোকন সিকদার, জেপির মহিলা পার্টির উপজেলা সভানেত্রী ও সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আসমা আক্তার, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সভাপতি মনির সরদার, জেপির ভিটাবাড়িয়া ইউপি সভাপতি রেজা আহম্মেদ দুলাল প্রমুখ।

সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে প্রস্তুত প্রশাসন
পিরোজপুর অফিস জানায়, ভাণ্ডারিয়া পৌরসভার নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে ও নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করতে প্রশাসন ও আইনশৃৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে। ভোটাররা নিরাপত্তার সঙ্গে নিরপেক্ষ পরিবেশে অবাধে ভোট দিতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে কোনো ধরনের চ্যালেঞ্জ আইনানুগভাবে মোকাবিলা করা হবে। গতকাল রবিবার জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এ সভায় জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান সভাপতিত্ব করেন। জেলা প্রশাসক বলেন, ভাণ্ডারিয়া পৌরসভার নির্বাচন আইন অনুযায়ী সম্পন্ন করতে নির্বাচন কমিশনকে সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শফিউর রহমান বলেন, নির্বাচনের দিন ছাড়াও এখন থেকেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে। পৌর এলাকার প্রবেশ পথগুলোতে পুলিশের বিশেষ চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। কেউ যাতে সন্ত্রাস, ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদানসহ কোনো ধরনের নিয়ম ভঙ্গ না করেন সেদিকে বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে। ভোটের দিন যাতে কোনো বহিরাগত ব্যক্তি পৌর এলাকায় অবস্থান করতে না পারে সেদিকে বিশেষ  ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ভোটকেন্দ্র পাহারাসহ রাস্তায় রাস্তায় টহল দিবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও ভোটগ্রহণ সুষ্ঠু ও নিরাপদ রাখার ক্ষেত্রে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

ইত্তেফাক/কেকে