বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

র‍্যাগিংয়ের অভিযোগে হাবিপ্রবিতে ৬ শিক্ষার্থী বহিষ্কার 

আপডেট : ২৯ আগস্ট ২০২৩, ১৮:১০

দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) র‌্যাগিংয়ে জড়িত থাকার অভিযোগে ছয় শিক্ষার্থীকে শিক্ষা কার্যক্রম থেকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করা হয়েছে। একই সঙ্গে তিন শিক্ষার্থীকে সতর্ক করা হয়েছে। 

ইত্তেফাককে মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মামুনুর রশীদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ৯ শিক্ষার্থী ২২ ব্যাচের শিক্ষার্থী। ২৪ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২৩ শিক্ষাবর্ষের কয়েকজন নবাগত শিক্ষার্থীকে বিভিন্নভাবে ক্যাম্পাসে ও অনাবাসিক ছাত্রাবাস–সংলগ্ন এলাকায় হয়রানি করা হয়। হয়রানির শিকার ওই শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি তদন্ত করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। তাৎক্ষনিকভাবে বহিষ্কৃতদের নাম প্রকাশ করেনি কর্তৃপক্ষ। 

অভিযুক্ত এক শিক্ষার্থীকে দেওয়া চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘২৪ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘটিত র‌্যাগিংয়ের ঘটনায় আপনার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন র‌্যাগিং প্রতিরোধ ও প্রতিকার নীতিমালা ২০২১–এর ৬ ধারার আলোকে গঠিত মূল কমিটির সুপারিশক্রমে এবং কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে একাডেমিক কার্যক্রমে আপনাকে ২ সেমিস্টার বহিষ্কার করা হয়েছে, যা ২৮ আগস্ট ২০২৩ থেকে কার্যকর বলে গণ্য হবে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মামুনুর রশিদ বলেন, ‘ওই শিক্ষার্থীদের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় নীতিমালা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে র‌্যাগিং নির্মূল করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ভবিষ্যতে কেউ র‌্যাগিং অপরাধে যুক্ত আছে, এমন প্রমাণ পেলে আরও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

তিনি আরও জানান, ‘বহিষ্কৃত ২২ ব্যাচের ৬ জন শিক্ষার্থী ২৩ ব্যাচের ৩ জন শিক্ষার্থীকে মেসে ডেকে আটকে রাখে এবং শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে। এসময় নবাগত শিক্ষার্থীদের সাথে যোগাযোগ করতে না পেরে তাদের পরিবারের সদস্যরা উদ্বিগ্ন হয়ে পরে। বিষয়টি আমাদের জানালে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে র‍্যাগিংয়ে জড়িত দুই শিক্ষার্থীকে ২ সেমিস্টার এবং চার শিক্ষার্থীকে ১ সেমিস্টারের জন্য বহিষ্কার করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন র‍্যাগিংয়ের ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে।’

ইত্তেফাক/এআই