সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

দক্ষিণাঞ্চলের স্বপ্ন প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে বাস্তবায়িত হয়েছে: রেলমন্ত্রী

আপডেট : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ২০:৪২

রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে বাস্তবায়িত হয়েছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় আসার পর রেলকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে যোগাযোগ মন্ত্রণালয় থেকে আলাদা করে রেল মন্ত্রণালয় গঠন করেছেন। 

ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু পার হয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের বামনকান্দায় ভাঙ্গা রেলওয়ে জংশনে এসে পৌঁছেছে ৬ কোচের একটি ট্রায়াল ট্রেন। এ ট্রেনে আসেন রেলমন্ত্রী, রেলসচিবসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা। 

এর আগে ঢাকা থেকে বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা ৭ মিনিটে লোকমোটিভসহ ৬টি কোচের পরীক্ষামূলক ট্রেনটি ঢাকা রেলওয়ে স্টেশন ত্যাগ করে দুপুর বারোটা ২০ মিনিটের দিকে ভাঙ্গা জংশনে এসে পৌঁছায়।

রেলমন্ত্রী বলেন, যে দেশের সরকার যত উন্নত সেই দেশের রেল যোগাযোগ তত সমৃদ্ধ। আমাদের দেশে এর আগের সরকার রেল যোগাযোগকে এগিয়ে নিতে কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। বরং তারা রেলে আগুন দিয়েছে। ভবিষ্যতে ভাঙ্গা থেকে পটুয়াখালী ও বরিশাল হয়ে পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেল যোগাযোগ স্থাপন করা হবে।

প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনা রেলকে আধুনিক সাশ্রয়ী ও যুগোপযোগী স্মার্ট করা। এটাই স্মার্ট বাংলাদেশের আমাদের উপহার। আমরা রেল ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছি উল্লেখ করে রেলমন্ত্রী বলেন, এর মধ্যে রয়েছে প্রত্যেক জেলাকে রেল পথের সঙ্গে যুক্ত করা, মিটার গেজ ও ব্রড গেজের জায়গায় এক পদ্ধতির রেল পথ চালু করা, সিঙ্গেল লাইনকে ডাবল লাইন করা, রেলকে নদী ও সমুদ্র বন্দরের সঙ্গে সংযুক্ত করা। আগামীতে বিদ্যুৎবাহিত রেল চালু করে রেলের উন্নয়ন ঘটানো।

পরীক্ষামূলক যাত্রার প্রথম এই ট্রেনটির লোকোমাস্টার হিসেবে এনামুল হক এবং সহকারী লোকোমাস্টার হিসেবে এমএ হোসেন ট্রেন চালিয়ে এসেছেন। আর গার্ড হিসেবে ট্রেন পরিচালনা করেছেন আনোয়ার হোসেন। 

ভাঙ্গা রেলওয়ে জংশন পরিদর্শন শেষে বাংলাদেশ রেলওয়ে ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিং এ প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এমপি। তিনি বলেন, আগামী ১০ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন। এরপর দ্রুততম সময়ের মধ্যে রেললাইন বাণিজ্যিকভাবে খুলে দেওয়া হবে।

এরপর দুপুর দেড়টার দিকে ওই ট্রায়াল ট্রেনেই ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন রেলমন্ত্রীসহ তার সফরসঙ্গীরা।

পরীক্ষামূলক ট্রেনের যাত্রী হিসেবে রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনের সঙ্গে ভাঙ্গায় সফরসঙ্গী হয়েছেন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ ও মাদারীপুর-১ (শিবচর) আসনের ৬ বারের সফল সংসদ সদস্য নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটন, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাজাহান খান এমপি, রেলপথ সচিব ড. হুমায়ুন কবীর, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. কামরুল আহসান, পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের পরিচালক আফজাল হোসেন, রেলপথ মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং রেলওয়ের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। 

ভাঙ্গা রেলওয়ে জংশনে উপস্থিত ছিলেন ফরিদপুর-৪ (ভাঙ্গা, সদরপুর ও চরভদ্রাসন) আসনের এমপি মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন, মাদারীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুনীর চৌধুরী, ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল আহসান তালুকদার, পুলিশ সুপার মো. শাহজাহান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেনসহ অনেকে।

ঢাকা থেকে পদ্মাসেতুর উপর দিয়ে যশোর পর্যন্ত নতুন ১৭২ কিলোমিটার রেলপথ নির্মাণ করা হচ্ছে পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের আওতায়। আগামী ১০ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই রেলপথের আংশিক এই অংশ উদ্বোধন করবেন। তার কিছুদিন পর থেকে এই পথে চালানোর কথা রয়েছে যাত্রীবাহী বাণিজ্যিক ট্রেন।

ইত্তেফাক/পিও