বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ তরুণদের জন্য শিক্ষণীয়: মিলাদ

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২৩, ২১:৩০

১৩ অক্টোবর ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ সিনেমাটি দেশজুড়ে মুক্তি পেয়েছে। সিনেমাটি নিয়ে অনেক আলোচনা-সমালোচনা চলছে। এরিমধ্যে সিনেমাটি নিয়ে তরুণ উদ্যোক্তা আল হাসান মিলাদ বলেন, ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ শুধু সিনেমা বললে ভুল হবে; এটি আমাদের দেশের তরুণদের উদ্ভাবিত করার মতো একটি চলচ্চিত্র। এটি বাংলাদেশের ইতিহাসের অমূল্য প্রামাণ্য চিত্রও। সিনেমাটির প্রতিটি দৃশ্যে রূপায়ণ করা হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক জীবনকে।

বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক দেখে আল হাসান মিলাদ আরও বলেন, কতটুকু সংগ্রাম করে এই দেশের জন্ম হয়েছে সেটা আসলেই কল্পনীয় ছিল। সে কাজটিকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান করে দেখিয়েছেন। আমি মনে করি, এই সিনেমা থেকে আমাদের দেশের তরুণদের অনেক কিছু শিখার আছে। কারণ সিনেমা দেখার আগে আমি নিজেও ভাবতে পারিনি, দেশের জন্য কতটুকু সংগ্রাম করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। 

‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ প্রসঙ্গে আল হাসান মিলাদকে সিনেমার মূল অভিনেতা আরেফিন শুভ সম্পর্কে বলতে বলা হলে তিনি বলেন, আমার কাছে মনে হয় এই সিনেমায় বঙ্গবন্ধুর চরিত্রের জন্য অনেক বেশি স্ট্রং না থাকলে করা সম্ভব হতো না। কারণ ৫০ দশকের আগের একজন ব্যক্তিকে এভাবে বুকে লালন যদি তিনি না করতে পারতেন, তাহলে উনার পক্ষে এত নিখুঁত অভিনয় করা অসম্ভব হতো। আমি মনে করি, এটি শুভ ভাইয়ের জীবনের শ্রেষ্ঠ কাজ হয়ে থাকবে। 
 
তিনি আরও বলেন, সিনেমা তো মানুষের জীবন নিয়েই তৈরি হয়। কখনও কাল্পনিক, কখনও বাস্তব। আর এটি একটি বাস্তব গল্প। সিনেমাটি দেখে আপনারা তৃপ্তি পাবেন এবং বাংলাদেশের ইতিহাস সম্পর্কে অনেক কিছুই জানতে পারবেন।
 
ফজলুর রহমান বাবুর খন্দকার মোশতাক প্রসঙ্গ টেনে আল হাসান মিলাদ বলেন, আমাদের দেশে এরকম হাজারো খন্দকার মোশতাক এখনও আছে। অত্যন্ত কাছে থাকবে আপনার, সবকিছু দেখবেন নিজের মতো করে করছে; অথচ পরে আপনাকেই হত্যা করবে। এরকম অনেক খন্দকার মোশতাক আমার জীবনেও ছিল।

ইত্তেফাক/পিও