বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

পিৎজা হাটের নতুন আকর্ষণ ‘সাপের পিৎজা’

আপডেট : ০৯ নভেম্বর ২০২৩, ১৭:০৭

পৃথিবীতে পিৎজা খেতে ভালোবাসে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া ভার। আর তা যদি হয় পিৎজা হাট এর তাহলে তো কথাই নেই। এবার সেই পিৎজা হাট নিয়ে এসেছে ভিন্ন স্বাদের এক পিৎজা। এতে থাকবে সাপের মাংস। ঠিক শুনেছেন। হংকংয়ের পিৎজা হাটে পাওয়া যাবে পিৎজার নতুন এই ফিউশন।

‘সাপ খাওয়ার সবচেয়ে উপযুক্ত সময় তখনই, যখন শরতের বাতাস বইতে শুরু করে’

হংকংয়ের শত বছর পুরনো ‘সের ওং ফান’ রেস্টুরেন্ট। রেস্টুরেন্টে সাপের মাংস দিয়ে তৈরি বিভিন্ন খাবার পাওয়া যায়। এবার এই রেস্টুরেন্টের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে সাপের মাংস দিয়ে তৈরি এই পিৎজা নিয়ে এলো ‘পিৎজা হাট’। পিৎজার এই নতুন ফিউশনে থাকবে কাটা সাপের মাংস, কালো মাশরুম এবং শুকনো চাইনিজ হ্যামের টপিংস। এই পিৎজা প্রচলিত টমেটো সসের পরিবর্তে অ্যাবালোন সসের সঙ্গে পরিবেশন করা হবে।

স্থানীয় ক্যান্টোনিজ (চীনের আঞ্চলিক ভাষা) ভাষায় একটি কথা প্রচলিত আছে, ‘সাপ খাওয়ার সবচেয়ে উপযুক্ত সময় তখনই, যখন শরতের বাতাস বইতে শুরু করে।’ কারণ এ সময় শীতকালে আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাওয়ানো জন্য সাপ বেশ মোটাসোটা হয়ে যায়। অনেকের বিশ্বাস, সাপের মাংসে রয়েছে নানা ওষুধি গুণ। এটি ত্বকের জন্য উপকারী ও শরীর গরম রাখে। সেই সঙ্গে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশ যেমন ভিয়েতনাম ও থাইল্যান্ডে সাপ খুবই জনপ্রিয় একটি খাবার।

হংকংয়ের এই সাপের পিৎজা খেয়ে এক ব্যক্তি জানান, ‘পিৎজার টেক্সচারটি অনেকটা মুরগির মতো। আবার এতে কিছুটা মাছের স্বাদ পাওয়া যাবে। তা ছাড়া শীতকালে উচ্চ প্রোটিন যুক্ত খাবার হিসেবে আমার এটা বেশ পছন্দ।’ সাপের এই পিৎজার সাইজ ৯ ইঞ্চি। পিৎজাটি আগামী ২২ নভেম্বর পর্যন্ত পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছে হংকংয়ের ‘পিৎজা হাট’।

সূত্র: নিউইয়র্ক পোস্ট

ইত্তেফাক/এমটি/এইচএ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন