সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

সুনাক বলেছিলেন, ‘মানুষকে মরতে দিন’

আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০২৩, ১৩:২৩

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সময় দ্বিতীয়বারের মতো দেশব্যাপী লকডাউন না দিয়ে সরকারের উচিত ‘মানুষকে মরতে দেওয়া’- যুক্তরাজ্যের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও তৎকালীন অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনাক ২০২০ সালে এমন মন্তব্য করেছিলেন৷ গত সোমবার এক ইনকোয়ারি বা অনুসন্ধানে তার এই বক্তব্য তুলে ধরা হয়েছে৷ খবর ডয়চে ভেলের। 

যুক্তরাজ্য কীভাবে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছে তা নিয়ে অনুসন্ধান চলছে৷ সেখানে করোনার সময় যু্ক্তরাজ্যের প্রধান বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করা প্যাট্রিক ভ্যালেন্সের একটি ডায়েরি দেখানো হয়৷ ডায়রিতে ২০২০ সালের ২৫ অক্টোবর তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও অর্থমন্ত্রী সুনাকের মধ্যকার বৈঠকের উল্লেখ আছে৷  

জনসনের সবচেয়ে ঊর্ধ্বতন উপদেষ্টা ডমিনিক কামিংসের কাছ থেকে শোনা কথা ডায়রিতে লিখে রাখেন ভ্যালেন্স৷ জনসন ও সুনাকের মধ্যে বৈঠকের সময় তিনি ঐ মন্তব্য শোনেন বলে কামিংস ভ্যালেন্সকে জানান৷ ডায়রির লেখাটি অনুসন্ধান চলার সময় দেখানো হয়েছে৷

কামিংসকে উদ্ধৃত করে ভ্যালেন্স ডায়রিতে লিখেছেন, 'ঋসি মনে করেন মানুষকে মরতে দাও, এবং এটা ঠিক আছে৷ নেতৃত্বের পুরো অভাব আছে বলে মনে হয়েছে৷'  

সুনাকের মুখপাত্র জানিয়েছেন, তিনি (সুনাক) যখন অনুসন্ধান কমিটির মুখোমুখি হবেন তখন প্রমাণ দেবেন৷ করোনায় যুক্তরাজ্যে দুই লাখ ২০ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন৷ ২০২৬ সালের গ্রীষ্ম পর্যন্ত অনুসন্ধান চলবে৷

এর আগে সরকারের একজন বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা সুনাককে ‘ড. ডেথ’ বলে আখ্যায়িত করেছিলেন৷ কারণ, ২০২০ সালের গ্রীষ্মে সুনাক ‘ইট আউট টু হেল্প আউট' কর্মসূচি চালু করেছিলেন৷ এর আওতায় পাব ও রেস্টুরেন্টের খাবারে ভর্তুকি দেওয়া হয়েছিল৷ তবে এই কর্মসূচি করোনা ছড়াচ্ছে বলে তখন এর সমালোচনা করেছিলেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা৷ 

ইত্তেফাক/এসআর