রোববার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

ইলন মাস্ককে গাজা সফরের আমন্ত্রণ জানালো হামাস

আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২৩, ১৩:১৭

বিশ্বের শীর্ষ ধনী ব্যবসায়ী এবং মার্কিন প্রযুক্তি উদ্যোক্তা ইলন মাস্ক। গত সোমবার (২৭ নভেম্বর) ইসরায়েলে গিয়ে হামাসের হামলা স্থল দেখে এসেছেন এ মার্কিন ধনকুবের। দেখা করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গেও। কিন্তু এখনো দেখা হয়নি পরবর্তীতে গাজায় ইসরায়েলের চালানো ধ্বংসলীলা। এবার সেই লক্ষেই লেবাননের বৈরুতে এক সংবাদ সম্মেলনে ইলন মাস্ককে গাজা সফরের আমন্ত্রণ জানান হামাসের সিনিয়র নেতা ওসামা হামদান। আজ বুধবার (২৯ নভেম্বর) বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, মূলত গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বোমা হামলার ফলে সৃষ্ট ধ্বংসের পরিমাণ দেখার জন্যই আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে ইলন মাস্ককে। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে ওসামা হামদান বলেন, ‘বস্তুত ও বিশ্বাসযোগ্যতার মানদণ্ড মেনে গাজার জনগণের বিরুদ্ধে সংঘটিত গণহত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞের পরিধি দেখার জন্য আমরা তাকে (ইলন মাস্ক) গাজা সফরের আমন্ত্রণ জানাই।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘ইলন মাস্ক ইসরায়েল সফর করে ৭ অক্টোবরের ঘটনা দেখছে। কিন্তু কেন এ অভিযান এবং পরবর্তীতে ইসরায়েলের চালানো ধ্বংসলীলা বা গাজায় ইসরায়েলের মানবাধিকার লঙ্ঘন দেখতে হলে তাকে গাজায় আসতে হবে।’

সোমবার (২৭ নভেম্বর) ইলন মাস্কের ইসরায়েল সফরের পরপরই হামাসের পক্ষ থেকে এ আমন্ত্রণ জানানো হয়। ৫০ দিনের মধ্যে ইসরায়েল প্রতিরক্ষা হীন গাজা বাসীদের ওপর ৪০ হাজার টনের বেশি বিস্ফোরক ফেলেছে জানিয়ে হামদান আরও বলেন, ‘আমি মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে ইসরায়েলের সাথে মার্কিন সম্পর্ক পর্যালোচনা করতে এবং তাদের অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করার আহ্বান জানাচ্ছি।’

৭ অক্টোবরের পর থেকে গাজায় ইসরায়েলের ধ্বংসযজ্ঞ ও তাণ্ডবের বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে, হামদান ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকে থাকা মৃতদেহ উদ্ধারে সহায়তা করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। হাজার হাজার মানুষ এখনও আটকে আছে বলে জানায় ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। 

ইত্তেফাক/এমটি