বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

‘আমরা এখন ম্যাচে এগিয়ে আছি এটা ধরে রাখতে হবে’

আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৯:৩০

ভারতে অনুষ্ঠিত হওয়া বিশ্বকাপে ভরাডুবির পর সিলেটে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট জয়ের পর ঢাকায়ও টেস্ট জিততে মরিয়া বাংলাদেশ। যে করেই হোক, সফরকারীদের বিপক্ষে সিরিজ জিততে হবে। তবে তা খুব সহজে হচ্ছে না। বোলারদের দাপট, তার সঙ্গে রয়েছে আলোর সংকট আর বৃষ্টি, সবকিছু মিলিয়ে চ্যালেঞ্জিং একটা পরিস্থিতি।

তবে স্বাগতিক ব্যাটাররা দায়িত্ব নিয়ে খেলে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২০০ বা তার বেশি রান করলে যে সফরকারীদের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে পারবে—এই মাঠে তা বলা যায়। এর পরের কাজটুকু হবে বোলারদের। যদিও তৃতীয় দিন শেষে টাইগাররা এই ম্যাচে এগিয়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের তরুণ অফ স্পিনার নাঈম হাসান।

গত বুধবার এই ম্যাচের প্রথম দিনেই বোলাররা নিয়েছেন ১৫ উইকেট। দ্বিতীয় দিনের খেলা মাঠেই গড়াতে পারেনি বৃষ্টির জন্য। এরপর গতকাল তৃতীয় দিনে এসেও ঘণ্টা তিনেকে উইকেট গেছে সাতটি। তাই খেলা শেষে এ ম্যাচের ভবিষ্যত্ কী হতে চলেছে—এ নিয়ে প্রশ্ন রাখা হয় দলের প্রতিনিধি হিসেবে সংবাদ সম্মেলনে আশা নাঈমের কাছে। জবাবে তিনি বললেন, ‘উইকেট যা-ই হোক আমাকে খেলতে হবে, কোনো অজুহাত দেওয়া যাবে না। এখন যদি আমাকে ফ্ল্যাট উইকেটে খেলতে বলা হয় তাহলে কী আমি বলব, বোলিং করব না? ওটা তো বলতে পারব না। এই উইকেটে ব্যাটাররা ব্যাট করছে, রান করছে। আমাদের সবাইকে চেষ্টা করতে হবে। উইকেট যেমনই হোক ভালো সংগ্রহ করতে হবে আর বোলিংয়ে ভালো করতে হবে।’

তৃতীয় দিনের খেলা শেষে বাংলাদেশের লিড ৩০ রান। ৮ রানে পিছিয়ে থেকে লাল-সবুজের দল দিন শেষ করে ২ উইকেটে ৩৮ রানে। মাহমুদুল হাসান জয় ২ ও অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত ১৬ রানে সাজঘরে ফেরেন শুরুতে। জাকির হাসান ১৬ ও মুমিনুল হক শূন্য রানে তৃতীয় দিন শেষে অপরাজিত আছেন।  এর পর আলোকস্বল্পতায় দিনের খেলার ইতি টানতে বাধ্য হন ম্যাচ অফিসিয়ালরা।

নাঈম জানান ব্যাটিং এখন উইকেটের জন্য ভালো, ‘প্রথম দিনের তুলনায় আজ উইকেট একটু ভালো ছিল ব্যাটিংয়ের জন্য। আমরা যদি একটা ভালো স্কোর দাঁড় করাতে পারি, তাহলে ইনশাআল্লাহ জিতব। আমরা এখন ম্যাচে এগিয়ে আছি, এটা ধরে রাখতে হবে। যতক্ষণ যত ভালো ব্যাট করব, তত ভালো হবে।’

এর আগে শুক্রবার ৫ উইকেটে ৫৫ রান নিয়ে মাঠে নামে নিউজিল্যান্ড। তবে এদিন মাঠে নেমে ব্যতিক্রম ব্যাটিং করে সফরকারিরা। স্বাগতিক বোলারদের ওপর আক্রমণ চালিয়ে খেলতে থাকে। বিশেষ করে গ্লেন ফিলিপস। তিনি তো লাল বলের ক্রিকেটে ওয়ানডের ছাপ নিয়ে আসে, বাউন্ডারি-ওভার বাউন্ডারি প্রদর্শন করতে থাকেন। আর তার এমন আক্রমণত্মক ব্যাটিংয়ে ৮ রানের লিড পায় দল।

যেখানে প্রথম দিনের খেলা শেষে বাংলাদেশের লিড পাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল। এ বিষয়ে টাইগাররা প্রতিক্রিয়া জানতে হলে নাঈম বলেন, ‘আসলে ওরাও (নিউজিল্যান্ড) খেলতে এসেছে তো আর একটা জুটি হতেই পারে, যে কেউই একজন ভালো খেলতেই পারে। এখন ওদের মধ্যে (ফিলিপস) ভালো খেলেছে, এজন্য ওরা লিড নিতে পেরেছে।’ এ সময় হতাশা ফিলিপসের ব্যাটিংয়ে দলের মধ্যে হতাশা কাজ করছে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘লিড পেলে ভালো হতো। এখন আমরা আল্লাহ রহমতে দিন শেষে লিডে আছি, আমরা যদি ভালো ব্যাটিং করি, ভালো একটা স্কোর হবে।’

এই ম্যাচে জয় পেতে যে মরিয়া বাংলাদেশ তা প্রথম ম্যাচের পরেই জানিয়েছিলেন খেলোয়াড়রা। ইতিমধ্যে খেলা কিছুটা নিজেদের আয়ত্তেও নিয়ে এসেছে। এই মাঠে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে ২০০ রানের বেশি করতে পারলেই কিউইদের বিপক্ষে বড় চ্যালেঞ্জ দাঁড় করতে পারবে। এর পরের কাজটা শুধু বোলারদের। আর সেটা করতে ইতিমধ্যে প্রস্তুত বোলাররা। চতুর্থ ইনিংসে তাদের যা করার দরকার তাই করবেন জেতার জন্য এমনটি জানিয়েছেন নাঈম। বলেন, ‘ম্যাচ জেতার জন্য আমাদের যা যা করা দরকার সবই করতে রাজি।’

ইত্তেফাক/এএম