শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

রাজশাহীতে বিএনপির মানববন্ধনে মিনু

‘বাঁচতে হলে বীরের মতো বাঁচতে হবে’

# মানববন্ধন শেষে ফেরার পথে ৫ জন গ্রেপ্তার

আপডেট : ১০ ডিসেম্বর ২০২৩, ২০:৪৪

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, রাজশাহীর সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু বলেছেন, ‘বিএনপির আর হারানোর কিছু নাই। এরই মধ্যে আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকেছে। পেছানোর মতো আর কোনো উপায় নেই। এখন বাঁচতে হলে বীরের মতো বাঁচতে হবে। এই সরকার দেশের জনগণকে একটি বিষাক্ত মাকড়সার জালের মধ্যে আটকে রেখেছে। দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও মানুষকে বাঁচাতে হলে এই জাল কেটে ফেলতে হবে। সেই কাজ করতে হলে জীবন-মরণ লড়াই ছাড়া সম্ভব নয়।’

আজ রোববার (১০ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে মহানগরীর বাটার মোড়ে মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার নেতাকর্মী ও পরিবারের স্বজনদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত মানবন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

মিনু বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। এ অবস্থায় তার কিছু হলে এই সরকারকে দায়ভার বহন করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিদিন বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের বিনা কারণে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হচ্ছে। সেই সঙ্গে হুমকিধমকি দিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা টাকা আদায় করছে। ২৮ অক্টোবরের পর রাজশাহীর ১৮০০ নেতাকর্মীকে বিনা কারণে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

রাজশাহী মহানগর ও জেলা বিএনপি আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট এরশাদ আলী ঈশা। প্রধান বক্তা ছিলেন মহানগরীর সাবেক সভাপতি ও রাজশাহী সিটির সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক এমপি জাহান পান্না, মহানগর যুগ্ম-আহ্বায়ক নজরুল হুদা, দেলোয়ার হোসেন ও বজলুল হক মন্টু, জেলার সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ্বনাথ সরকার, মহানগর জিয়া পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক আকতার হোসেন। এছাড়া, জেলা ও মহানগর এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধন শেষে ফেরার পথে ৫ জন গ্রেপ্তার
মানববন্ধন শেষ করে ফেরার পথে সাদা পোশাকে পুলিশ বিএনপির ৫ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক এবং সাবেক সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, ‘আমরা শান্তিপুর্ণভাবে মানববন্ধন করেছি। মানববন্ধন শেষ করে কিছু দূর যাওয়ার পর কোন কারণ চাড়াই সাদা পোশাকের পুলিশ বিএনপির ৫ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে গেছে। এদের মধ্যে রয়েছেন, নগর বিএনপির সাবেক দপ্তর সম্পাদক নজরুল ইসলাম ডিকেন, রাজপাড়া থানা যুবদলের সাবেক সভাপতি মিঠু ও যুবদল নেতা কচি। তবে অপর দুইজনের নাম জানাতে পারেননি তিনি।’

বোয়ালিয়া থানার ওসি সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, ‘আটক হওয়া বিএনপি নেতাকর্মীরা নাশকতার মামলার আসামি। তারা আত্মগোপনে ছিলেন। মানববন্ধনে অংশ নিতে এসেছিলেন তারা।’

ইত্তেফাক/এইচএ