বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

লয়েড অস্টিন-ইয়োআভ গ্যালান্ট বৈঠক

গাজা অভিযান কমানোর ইঙ্গিত

আপডেট : ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৪:০০

মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিনের সঙ্গে সোমবার দীর্ঘ বৈঠক হয়েছে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর। বৈঠকে গাজা অভিযানের তীব্রতা ক্রমশ কমিয়ে আনার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। গতকাল সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) দিনভর বৈঠকের পর এই ইঙ্গিত পাওয়া যায়। খবর ডয়চে ভেলের।  

প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী তেলআবিবে একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে বৈঠক করেছেন। সবচেয়ে লম্বা বৈঠক হয়েছে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োআভ গ্যালান্টের সঙ্গে। সেখানেই গাজা অভিযানের তীব্রতা ক্রমশ কমিয়ে আনার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

বস্তুত বিভিন্ন দেশের পক্ষ থেকে যুদ্ধবিরতির আবেদন জানানো হচ্ছে। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদেও ফের এ বিষয়ে আলোচনা শুরুর কথা। তারই ঠিক আগমুহূর্তে, এই ইঙ্গিত দেওয়া হলো।

এছাড়া জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে যুদ্ধবিরতি নিয়ে ফের ভোটা হওয়ার কথা। মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) পর্যন্ত তা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এই পরিস্থিতিতে ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফের যুদ্ধবিরতির দাবি তুলেছেন। আরব দেশগুলো এনিয়ে নতুন খসড়াও তৈরি করছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র এদিন ভোটে অংশ নিতে চায়নি। এর আগে নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

কিন্তু সূত্র জানায়, এবার যুক্তরাষ্ট্র আর ভেটো দিতে চাইছে না। একটা সর্বসম্মত প্রস্তাব সামনে আসতে পারে। মঙ্গলবার এ বিষয়ে চূড়ান্ত ভোটাভুটি হতে পারে। তবে সেই প্রস্তাবের খসড়া নিয়ে সন্তুষ্ট নয় যুক্তরাষ্ট্র। সে বিষয়ে ঐক্যমত না হওয়া পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তাবটি মানবে না বলেই জানা গেছে। বস্তুত তার আগে সোমবার ইসরায়েলের সঙ্গে বৈঠকে কী হয়- সেদিকেও নজর ছিল সবার।

সোমবারের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলকে জানিয়েছে, চলতি বছরের ৭ অক্টোবরের ঘটনার পর ইসরায়েল যে পাল্টা লড়াই শুরু করেছে, যুক্তরাষ্ট্র তা সমর্থন করে। কারণ ইসরায়েলের আত্মরক্ষার সম্পূর্ণ অধিকার আছে। কিন্তু একই সঙ্গে বেসামরিক লোকদেরকে রক্ষার দায়িত্বও আছে ইসরায়েলের। এবার সেদিকেই নজর দিতে হবে।

এদিকে লোহিত সাগরে নিরাপত্তা বাড়াতে একটি আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির সঙ্গে এ অপারেশনে যোগ দেবে বাহরাইন, যুক্তরাজ্য, কানাডা, ফ্রান্স, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, স্পেন ও সেশেলস। লোহিত সাগরের পথ দিয়ে যেসব জাহাজ যাবে তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে এই গোষ্ঠী।

উল্লেখ্য, গত কিছুদিন একাধিকবার ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা এই পথে মার্কিন জাহাজের ওপর হামলা চালিয়েছে।

ইত্তেফাক/এমটি