সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

ডায়াবেটিক রোগীরাও নিয়ম মেনে রাখতে পারবেন রোজা

আপডেট : ২১ জানুয়ারি ২০২৪, ০২:৩০

কিছু নিয়ম মেনে ডায়াবেটিক রোগীরাও রোজা রাখতে পারবেন বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। তারা বলেছেন, রোজা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। ডায়াবেটিক রোগীদের রমজানের কমপক্ষে দুই থেকে তিন মাস আগে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করতে হবে। সাম্প্রতিক একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, রমজানের পূর্বপ্রস্তুতি নিয়ে যারা রোজা রাখেন, তাদের হাইপোগ্লাইসেমিয়াসহ অন্য জটিলতা রমজানের আগের চেয়েও অনেক কম হয়।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকরাম খাঁ হলে ‘ক্লিনিক্যাল অ্যান্ডক্রিনোলজিস্ট অ্যান্ড ডায়াবেটোলজিস্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (এসিইডিবি) আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। ‘এসিইডিবি’ এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সংবাদ সম্মেলনে এসিইডবির দপ্তর সম্পাদক ড. মোবারক হোসেনের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সচিব আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, এসিইডিবির সভাপতি মো. ফরিদ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ প্রসাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, বাংলাদেশের শতকরা প্রায় ৮০ জন ডায়াবেটিক রোগী রোজা রেখে থাকেন। এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, সারা বিশ্বের প্রায় ৫০ মিলিয়ন ডায়াবেটিক রোগী রোজা রাখেন। কিন্তু ডায়াবেটিক রোগীদের মধ্যে যারা চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া রোজা রাখেন, তারা কিছু জটিলতার সম্মুখীন হন। বিশেষজ্ঞরা বলেন, রক্তে সুগারের স্বল্পতা (হাইপোগ্লাইসেমিয়া), রক্তে সুগারের আধিক্য (হাইপারগ্লাইসিমিয়া), ডায়াবেটিস কিটোএসিডোসিস এবং পানি শূন্যতা বা ডিহাইড্রেশনে ভোগেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিশেষজ্ঞরা জানান, নিরাপদে ডায়াবেটিক রোগীর রোজা পালনের ব্যাপারে দীর্ঘদিন থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যান্ড্রোক্রাইন ডিপার্টমেন্ট সর্বস্তরে জনগণকে সচেতন করার জন্য বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে আসছে। রমজানের আগে এই হাসপাতালের অ্যান্ড্রোক্রাইনোলজিস্টরা সারা দেশে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছেন। বাংলাদেশের অ্যান্ড্রোক্রাইনোলজিস্টদের সংগঠন ক্লিনিক্যাল অ্যান্ডোক্রিনোলজিস্ট ও ডায়াবেটোলজিস্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (এসিইডিবি) ২০২৩ সালের অক্টোবরে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টিকে আরও গুরুত্বের সঙ্গে দেশবাসীর কাছে তুলে ধরার জন্য রজব মাসকে ‘ডায়াবেটিস ও রমজান সচেতনতা মাস হিসেবে ঘোষণা করেছে।

ইত্তেফাক/এমএএম