বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

মাথায় কেটেছে, রক্ত ঝরেছে—তবু ম্যাচ জয়ের আনন্দ

আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫:৩৮

প্রিমিয়ার লিগে বসুন্ধরা কিংসের মতো শক্তিশালী দলকে (১-০) হারিয়েও মোহামেডান শিবিরে কোনো বাড়তি উচ্ছ্বাস নেই। বেলা ১১টার দিকে ক্লাব মাঠে অনুশীলনে নামলেন আগের দিন যারা ম্যাচ খেলেননি। মাঠের পাশে শীতের রোদে চেয়ারে বসে ছিলেন কিংসের বিপক্ষে খেলা মোহামেডানের গোলরক্ষক সুজন হোসেন। মাথায় ব্যান্ডেজ প্যাঁচানো। 

কিংসের বিপক্ষে এরিয়েলের বল গ্রিপ করার পরও পেছন থেকে কিংসের ব্রাজিলিয়ান ডরিয়েলটন লাফিয়ে হেড করলে মাথা ফাটে সুজনের। এভারকেয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সুজনকে সেলাই দেওয়ার কথা বলা হলেও তিনি রাজি হননি। ডাক্তাররা সুজনের মাথা ব্যান্ডেজ দিয়ে বেঁধে দেন। গতকাল সুজন বললেন, ‘সেলাই না নিলেও চলবে মনে করে আমি সেটা নিতে রাজি হইনি। হাফ ইঞ্চি কেটে গেছে।’

সুজন বলছিলেন, মাথায় আঘাত লাগার পর বাম চোখে ঝাপসা দেখছিলেন তিনি। ফ্লাড লাইটের আলো চোখে পড়ছিল। তারপরও রেফারিকে বলেছেন, তিনি খেলতে পারবেন। খেলার শেষ সময়। খেলা ছেড়ে চলে আসলে বদলি গোলরক্ষক সাকিব আল হাসানের জন্য চাপ বেড়ে যাবে। সেই চিন্তা করে সুজন বললেন, ‘আমি মাঠ থেকে যত দেরিতে বের হবো সাকিবের জন্য তত ভালো। কিন্তু আর পারছিলাম না।’ সাকিব মাঠে নেমে দুর্দান্ত তিনটি ভালো সেভ দিয়েছেন। কিংসের ব্রাজিলিয়ান রবসন এবং ডরিয়েলটনের শট নিশ্চিত বিপদ থেকে বাঁচিয়েছেন সাকিব। খেলার যে ধারা তার সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে সাকিব যেভাবে বিপদ বাঁচিয়েছেন তা প্রশংসনীয়। কোচ আলফাজও সাকিবের কথা বলেছেন।

বসুন্ধরা কিংসের ম্যাচ নিয়ে গোলরক্ষক সুজন তার অভিজ্ঞতার কথাই শোনালেন। সুজন ছিলেন মোহামেডানের সাইড বেঞ্চের গোলরক্ষক। তখন নিয়মিত ছিলেন বিপু। করোনার শুরুর সময়টায় লিগের ম্যাচে কুমিল্লায় বসুন্ধরা কিংসকে মোহামেডান হারিয়েছিল ১-০ গোলে। সেই লিগ বাতিল হয়। লকডাউনের পর লিগের ম্যাচে মোহামেডান হেরেছিল ৪-০ গোলে। কিংসের মাঠে ২-০ গোলে হেরেছিল, বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে লিগ ম্যাচে খেলা শেষ হওয়ার ৩০ সেকেন্ড আগে গোল হজম করে হেরে যায় মোহামেডান। 

ফেডারেশন কাপ ফুটবলের সেমিফাইনালে গোপালগঞ্জে মোহামেডান ২-১ গোলে হারায় কিংসকে। লিগের ম্যাচে কুমিল্লায় ১-০ গোলে হারে মোহামেডান, সেই ম্যাচে ২০ মিনিটে লালকার্ড পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছিল সুজনকে। রাতে ঘুম হয়নি সুজনের। এখনো মাথাব্যথা। তাতে আফসোস নেই ফরিদপুর রাজবাড়ির ছেলে সুজনের। এখনো বুঝতে পারছেন না কিংসের মতো দলকে হারানোর কথা। সুজন বললেন, ‘স্বপ্ন মনে হচ্ছে। এটা ইতিহাস।’ কিংস গোল শোধ করার চেষ্টা করেছে। ভাগ্য ভালো ছিল না। আলফাজ বললেন, ‘ম্যাচ জিততে ভাগ্য লাগে। আমাদের ভাগ্য ভালো ছিল।’ শনিবার কিংসের মাঠে কিংসকে হারিয়ে মোহামেডান শুধু নিজেদেরই ওপরে তোলেনি, আবাহনীর সামনে সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলেছে। কিংসের চেয়ে ৮ পয়েন্ট নিচে ছিল আবাহনী। সেই ব্যবধান কমিয়ে দিয়েছে মোহামেডান। 

 

ইত্তেফাক/জেডএইচ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন