বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুলাকে ইসরায়েলে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩:১৯

ইসরায়েলকে তুলাধুনা করেছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুলা দা সিলভা। আর তাতে চটে গেছে দেশটি। তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে ইসরায়েল। সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

রোববার আফ্রিকান ইউনিয়নের সম্মেলনে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন লুলা। এ সময় তিনি বলেন, গাজায় গণহত্যা চালাচ্ছে ইসরায়েল। তিনি ইসরায়েলকে নাৎসি বাহিনীর প্রধান এডলফ হিটলারের সঙ্গেও তুলনা করেন।

ইথিওপিয়ার রাজধানী আদ্দিস আবাবায় আফ্রিকান ইউনিয়নের সম্মেলনের ফাঁকে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘গাজা উপত্যকায় যা চলছে তা যুদ্ধ নয়, এটি গণহত্যা। এটি সৈন্যদের বিরুদ্ধে সৈন্যের লড়াই নয়। এটি একটি অসম লড়াই। শিশু ও নারীদের বিরুদ্ধে একটি সুসজ্জিত বাহিনীর লড়াই।’

লুলা দ্য সিলভা গ্লোবাল সাউথের একজন উল্লেখযোগ্য নেতা। যিনি ফিলিস্তিনিদের পক্ষে এবং তাদের স্বাধীনতা ও বেঁচে থাকার অধিকার নিয়ে সব সময়ই সোচ্চার। গাজার নিরীহ নারী ও শিশুদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে ইসরায়েল। তারা কোনো সেনাবাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধ করছে না।

লুলা বলেন, গাজাবাসীর সঙ্গে যা হচ্ছে তা ইতিহাসে আর কখনো ঘটেনি। হিটলার যখন ইহুদিদের হত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তখন এমনটা ঘটেছিল।

ব্রাজিলের প্রেসিডেন্টের এমন বক্তব্যের পর দেশটির রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে ইসরায়েল। দেশটিতে নিযুক্ত ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে একপ্রকার অপমানই করে দেশটি। একটি সূত্র জানিয়েছে, ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত ফ্রেদেরিকো মায়ারকে ডেকে হিব্রু ভাষায় একটি বিবৃতি শোনানো হয়। মায়ার নিজেও হিব্রু জানেন না এবং তাঁর জন্য কোনো দোভাষীও রাখা হয়নি।

এছাড়া ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাটজ একটি বিবৃতিও দিয়েছেন। সেখানে তিনি বলেন, আমরা বিষয়টি ভুলবও না, ক্ষমাও করব না। এটি একটি ইহুদিবিদ্বেষী হামলা। ইসরায়েলের পক্ষ থেকে তাকে বলুন যে, তিনি যতক্ষণ নিজের মন্তব্য প্রত্যাহার করে না নিবেন ততক্ষণ তিনি ইসরায়েলে অবাঞ্ছিত থাকবেন।

এক বিবৃতিতে নেতানিয়াহু বলেছেন, ‘নাৎসি ও হিটলারের হলোকাস্টের সঙ্গে ইসরায়েলের তুলনা করে লুলা বিপৎসীমা অতিক্রম করেছেন।’ তিনি আরও বলেন, ‘ইসরায়েল সম্পূর্ণ বিজয় লাভ না করা পর্যন্ত আত্মরক্ষা ও ভবিষ্যৎ নিশ্চিতের জন্য লড়াই করছে এবং এটি আন্তর্জাতিক আইনকে সমুন্নত রেখেই করছে।’ 

ইত্তেফাক/এনএন