বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

খতনার সময় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ

শিশুর অবস্থার অবনতি, চিকিৎসককে স্ট্যান্ড-রিলিজ 

আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭:২৭

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে খতনার সময় পুরুষাঙ্গের একাংশ কেটে ফেলা শিশু আল-নাহিয়ান তাজবীরের অবস্থার আরও অবনতি ঘটেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য আজ বৃহস্পতিবার তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে এ ঘটনায় দায়িত্ব অবহেলার দায়ে উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার বিজয় কুমারকে স্ট্যান্ড রিলিজ করেছেন জেলা সিভিল সার্জন।

এদিকে ঘটনা তদন্তে মেডিকেল অফিসার ডাক্তার শাহাদাত হোসেন সাগরের নেতৃত্বে ২ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তাদের ৩ দইনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. সেলিম।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, এ সময়ে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্বে ছিলেন মেডিকেল অফিসার লায়লা সাবরিনা শাহরিন। তার সহযোগি ছিলেন উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার বিজয় কুমার দে ও অফিস সহায়ক আহসান উল্যাহ। গতকাল বুধবার বিকেলে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার বিজয় কুমার দের অনুপস্থিতে শিক্ষানবিশ সৌরভ ভৌমিক শিশু তাজবীরের খতনা করেন। এ সময় শিশুটির পুরুষাঙ্গের একাংশ কেটে যায়। এতে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয় শিশুটির।  

শিশুটির পিতা আলমগীর হোসেন জানান, আমার বাচ্চার জ্বর, পুরো শরীরে ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, কাশিসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছে। বাচ্চার অবস্থা এখনও আশংকাজনক।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের সিভিল সার্জন ডাক্তার মাসুম ইফতেখার বলেন, উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার বিজয় কুমার দে’কে কক্সবাজার জেলার টেকনাফের সেন্ট মার্টিন দ্বীপের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে শাস্তিমূলক বদলি করা হয়েছে। শিক্ষানবিশ উপ-সহকারী মেডিকেল অফিসার সৌরভ ভৌমিককে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রবেশ করতে নিষেধ করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি