সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

হিলি স্থলবন্দর পরিদর্শনে ভারতীয় সহকারি হাইকমিশনার

ভৌগোলিক কারণে হিলি স্থলবন্দর গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে: মনোজ কুমার

আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:২৩

রাজশাহীতে নিযুক্ত ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার মনোজ কুমার বলেছেন, ভৌগোলিক কারণেই বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ব্যবসা-বানিজ্যের দিক থেকে হিলি স্থলবন্দর একটি গুরুত্বপূর্ন অবস্থানে রয়েছে। যা সম্ভাবনাময়ও। ফলে এই বন্দরকে ঘিরে বিভিন্ন প্রদক্ষেপ নেওয়া হবে।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে স্থলবন্দর, চেকপোস্ট ও সীমান্তের জিরোপয়েন্ট পরিদর্শনে এসে তিনি এসব কথা বলেন। 

এ সময় তিনি বলেন, এই বন্দর দিয়ে কীভাবে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম আরও গতিশীল করা যায় এবং যাত্রী পারাপার বাড়ানো যায় এবং ব্যবসায়ীসহ ভারত গমনে ভিসা জটিলতা দ্রুত নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতেই আমার এই সফর। হিলি স্থলবন্দরে বিদ্যমান যেসব সুযোগ-সুবিধা রয়েছে, এগুলোর উন্নয়ন ঘটিয়ে দুই দেশই যেন উপকৃত হয় সে জন্য আজ এই পরিদর্শন। নিজে এসে না দেখলে তো আর বোঝা যাবে না। এখানে যেসব সমস্যা রয়েছে সেগুলো সমাধান করে বন্দরের কার্যক্রম আরও গতিশীল করা হবে। ভিসা জটিলতা নিরসনে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে আশ্বাস দেন ভারতীয় হাইকমিশনার মনোজ কুমার।

দুপুর সোয়া ১টায় তিনি রাজশাহী থেকে সড়ক পথে হিলিতে আসেন। এরপর দুপুর দুইটার দিকে হিলি স্থলবন্দরের পানামা পোর্ট লিংক ও হিলি কাস্টমস পরিদর্শনে শেষে কাস্টমস কর্মকর্তা, বন্দরের আমদানি রফতানি কারকদের সাথে আলাদা আলাদা বেঠক করেন।

এদিন বেলা ৩টায় বাংলাদেশ-ভারতের ব্যবসায়ী, কাস্টমস কর্মকর্তা, বালুরঘাট-হিলি-মেঘালয় করিডোর কমিটি, স্থানীয় সিএন্ডএফ এজেন্টস সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার মনোজ কুমার।

বাংলাদেশ ও ভারতের আমদানি-রফতানিকারক ব্যবসায়ীদের বৈঠকে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা জানান, ভারতের অভ্যন্তরে কোয়ারেন্টাইন অফিস স্থাপন, উদ্ধর্তন কাস্টমস কর্মকর্তা না থাকা, ভিসা সহজীকরণ, ডলার রেট স্থিতিশীল না থাকাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সহকারী হাইকমিশনারকে অবগত করেন। জবাবে সহকারি হাইকমিশনার এসব সমস্যার সমাধানে আশ্বাস দেন। 

এর আগে বালুরঘাট-হিলি-বাংলাদেশ-মেঘালয় করিডোর কমিটির আহবায়ক নব কুমার দাস করিডোর বাস্তবায়নে সহকারী হাইকমিশনারকে প্রদক্ষেপ গ্রহণে অনুরোধ জানালে সহকারী হাইকমিশনার বিষয়টি বাংলাদেশ ও ভারতের সরকারের দৃষ্টিতে আনার আশ্বাস দেন। বিকাল সাড়ে ৫টায় ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার মনোজ কুমার হিলি থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে সড়ক পথে রওনা দেন।

ইত্তেফাক/এএইচপি