মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

চার বন্ধুকে নিয়ে খেতে গিয়েছিলেন নাজমুল, সন্ধান পাচ্ছে না পরিবার

আপডেট : ০১ মার্চ ২০২৪, ১৫:১১

বেইলি রোডের কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টে চার বন্ধুকে নিয়ে খেতে গিয়েছিলেন নাজমুল। নাজমুল ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতেন। 

ভবনটিতে আগুন লাগলে দুই বন্ধু লাফিয়ে নিচে পড়েন। আগুনে দগ্ধ হয়ে মারা গেছে জুনায়েদ নামের নাজমুলের এক বন্ধু। ঘটনার পর থেকে নাজমুলকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। বন্ধ তার মোবাইলও।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে সন্তানের খোঁজে বেইলি রোডে এসে রান্নায় ভেঙে পড়েন নাজমুলের বাবা নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, অফিস শেষ করে বাসায় ফিরেই জানতে পারি আমার ছেলে বেইলি রোডে বন্ধুদের সঙ্গে খেতে এসেছিল। ঘটনার পর থেকে ওর মোবাইল নম্বরটি বন্ধ রয়েছে। ঢাকা মেডিকেলসহ স্থানীয় হাসপাতালগুলোতে খোঁজাখুঁজি করেছি। কোথাও ছেলের সন্ধান পাইনি।

রাজধানীর বেইলি রোডে একটি বহুতল ভবনে আগুনে অন্তত ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন অন্তত ২২ জন। এ ঘটনায় নিহত মানুষের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টা ৫০ মিনিটে রাজধানীর বেইলি রোডে ছয়তলা ভবনে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের মোট ১৩টি ইউনিট ঘটনাস্থলে কাজ করে এবং রাত ১১টা ৫০ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। রাত ২টা ২০ মিনিটের দিকে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান এবং ঘটনাস্থলকে 'ক্রাইম সিন' ঘোষণা দিয়ে ভবনটির সামনে হলুদ ফিতা আটকে দেন। বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। ভবনটিতে কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্ট ছাড়াও, স্যামসাংয়ের শোরুম, গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ার, ইলিন, খানাস ও পিৎজা ইনের আউটলেট আছে বলে জানা গেছে।

 

ইত্তেফাক/পিও