শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়েতে ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয়

আপডেট : ০৭ মার্চ ২০২৪, ১৯:০০

গোটা উত্তরাঞ্চল ও দক্ষিণাঞ্চলজুড়ে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের অধীনে চলাচলকারী ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয় ঘটেছে। গতকাল বুধবার শুরু হওয়া সিডিউল বিপর্যয় আজ বৃহস্পতিবার মারাত্মক আকার ধারণ করে। এতে বিভিন্ন রেলওয়ে স্টেশনে হাজারো যাত্রী অসহায় পরিস্থিতির মুখোমুখি হন।

এদিকে রাবিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরুর দিন গত মঙ্গলবার ‘সি’ ইউনিটের গ্রুপ-৪ এর ৭০০ পরীক্ষার্থীকে নিয়ে ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেন নজিরবিহীনভাবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় পৌঁছায়। পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপকের অনুরোধ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের হস্তক্ষেপে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের কথা বুধবার যখন জানাজানি হয়, তখন গোটা উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলজুড়ে ট্রেন চলাচলের মারাত্মক সিডিউল বিপর্যয় ঘটে।

তবে ‘আজকের ধূমকেতুর যাত্রা’ শীর্ষক শিরোনামে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদারের ফেসবুক পোস্ট ভাইরাল হওয়ায় ট্রেনের এই সিডিউল বিপর্যয়ের ঘটনাটি আড়াল হয়।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ও ভুক্তভোগী যাত্রীরা জানান, গতকাল বুধবার বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে নির্ধারিত সময় সন্ধ্যা পৌনে ৭টার পরিবর্তে ২ ঘণ্টা পর রাত পৌনে ৯টায় রাজশাহীতে পৌঁছায়। এরপর ঢাকা থেকে সিল্কসিটি নামের ট্রেনটি নির্ধারিত সময়ের আড়াই ঘণ্টা পর রাত সাড়ে ১১টায় রাজশাহীতে পৌঁছায়। কিন্তু তার আগেই রাত ১১টা ২০ মিনিটে ওই ট্রেনটি ‘ধুমকেতু এক্সপ্রেস’ নামে ঢাকার উদ্দেশ্যে রাজশাহী ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল। তবে ট্রেনটি নির্ধারিত সময়ের প্রায় ৫ ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রাজশাহী ছেড়ে যায়।

অন্যদিকে বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকা থেকে রাজশাহী ছেড়ে যাওয়া পদ্মা এক্সপ্রেস নামের ট্রেনটি নির্ধারিত সময়ের ৩ ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় রাজশাহীতে পৌঁছায়। অথচ এই ট্রেনটি সকাল ৭টা ৪০ মিনিটে সিল্কসিটি এক্সপ্রেস নামে ঢাকার উদ্দেশ্যে রাজশাহী ছেড়ে আসার কথা ছিল। তবে ট্রেনটি প্রায় ৪ ঘণ্টা পর সকাল ১০টা ২৫ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। যদিও এই ট্রেন বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার মধ্যে ঢাকায় পৌঁছে বিকাল ২টা ৪০ মিনিটে আবার রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসার কথা ছিল। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ট্রেনটি নির্ধারিত সময়ের প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা পর বিকাল সাড়ে ৪টায় ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে পৌঁছায়। তবে ট্রেনটি কয়টায় রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছেড়েছে, তা জানা যায়নি।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগের পরিবহন কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলজুড়ে ট্রেনের মারাত্মক সিডিউল বিপর্যয়ের জন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক সম্মান শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষ্যে ছয়টি আন্তনগর ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল, রাজশাহী অভিমুখি ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের বহনকারী ট্রেনকে অগ্রাধিকার প্রদানকে দায়ী করেছেন। তিনি জানান, ওয়ানওয়ে রেললাইনে চলাচলকারী ট্রেনগুলোকে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের বহনকারী রাজশাহী অভিমুখি ট্রেনগুলোকে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদারও সাপ্তাহিক ছুটি বাতিলের বিষয়টি উল্লেখ করে জানান, গত ৪ মার্চ থেকে প্রতিদিন ঢাকাগামী চারটি ট্রেনে প্রতিদিন অতিরিক্ত ৮০০ থেকে হাজার যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছে। অনেকটা ঈদের মৌসুমের মতো পরিস্থিতি যাচ্ছে। এছাড়া পুরাতন রেললাইন ভেঙে যাওয়া এবং অতিরিক্ত যাত্রী ওঠানামায় বিলম্বের কারণে সিডিউল বিপর্যয় ঘটেছে। শুক্রবার বিরতিহীন বনলতার সাপ্তাহিক ছুটি রয়েছে। আগামী রোববার সিল্কসিটির সাপ্তাহিক ছুটির দিন ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয় কাটবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

ইত্তেফাক/এসকে