মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

টাইগারদের ক্যাচ মিসের মহড়া

আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৩১

সাগরিকায় লঙ্কানদের বিপক্ষে ক্যাচ মিসের মহাড়ার পর ভালো অবস্থানে থেকে প্রথম দিন শেষ করেন সফরকারীরা। দ্বিতীয় দিনে দেখা যায় টাইগার ফিল্ডারদের একই চিত্র। যেন ক্যাচ মিসের প্রতিযোগিতায় নেমেছেন বাংলাদেশের ফিল্ডাররা। দুই দিনে দুই হালি ক্যাচ মিস করে চট্টগ্রামে লঙ্কানদের রানের পাহাড় গড়ার সুযোগ দেন বাংলাদেশের ফিল্ডাররা।

এর আগে লঙ্কানদের বিপক্ষে সিরিজ-নির্ধারণী ম্যাচে সাগরিকায় টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে প্রথম দিনে ৪ উইকেট হারিয়ে স্কোর বোর্ডে ৩১৪ রান তোলেন লঙ্কানরা। প্রথমদিন শেষে সফরকারীদের হয়ে ৩৪ রানে দিনেশ চান্দিমাল এবং ১৫ রানে অপরাজিত থাকে অধিনায়ক ধনঞ্জয়া ডি সিলভা।  গতকাল প্রথম সেশনে লঙ্কান শিবিরে প্রথম আঘাতটা হানে সাকিব আল হাসান। ম্যাচের ১০৫তম ওভারে ৫৯ রানের অপরাজিত থাকা দিনেশ চান্দিমালকে কট বিহাইন্ডের ফাঁদে ফেলে ফেরান সাকিব। ব্যক্তিগত ৭০ রানে লঙ্কান অধিনায়ক ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরান খালেদ আহমেদ।

গতকাল লঙ্কানদের হয়ে সর্বোচ্চ ৯২ রান করেন কামিন্দু মেন্ডিস। প্রথম ইনিংস শেষে ১০ উইকেট হারিয়ে স্কোর বোর্ডে পাহাড়সমান ৫৩১ রান জমা করেন লঙ্কানরা। চট্টগ্রাম টেস্টে প্রথম ইনিংসে লঙ্কানদের ছয় ব্যাটার দেখা পায় অর্ধশতকের। যার মধ্যে দুইটি ছিল নব্বই ফেরোনো ইনিংস। যদিও এটিও একটি ইতিহাস হয়ে ধরা দেয় লঙ্কান শিবিরে। ভেঙে দেয় ৪৮ বছর আগে গড়া ভারতের রেকর্ড। ১৯৭৬ সালে নিজেদের ঘরের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচে ভারতের ছয় জন ব্যাটার দেখা পায় অর্ধশতকের। তবে কেউই পায়নি সেঞ্চুরির দেখা। সেই ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ভারত ৯ উইকেটে ৫২৪ তুলে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত।

গতকাল বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে ৫৩১ রান করে সেই রেকর্ড ভাঙেন শ্রীলঙ্কার ব্যাটাররা। যা ১৪৭ বছরের টেস্ট ইতিহাসে এই বিরল রেকর্ড। চট্টগ্রাম টেস্টে প্রথম ইনিংসে লঙ্কানদের বিপক্ষে বাংলাদেশি বোলাদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট শিকার করেন এক বছর পর সাদা পোশাকের ম্যাচ খেলতে নামা সাকিব আল হাসান। এছাড়াও দুই উইকেট শিকার করেন হাসান মাহমদু এবং এক উইকেট করে শিকার করেন পেসার খালেদ আহমেদ এবং স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ।

অন্যদিকে গতকাল শেষ বিকালে লঙ্কানদের পাহাড়সমান লক্ষ্য তাড়া করতে নামে ভালো শুরু করতে পারেনি বাংলাদেশ। ৪২ বল খেলে ২১ রান করে কুমারার বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে  ফেরেন জয়। তবে অন্যপ্রান্ত আগলে রেখে ২৮ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেন জাকির। এছাড়াও দ্বিতীয় দিন শূন্য হাতে অপরাজিত আছেন তাইজুল ইসলাম। ফলে ৫৫ রানে ১ উইকেট হারিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করে শান্ত বাহিনী।

ইত্তেফাক/এএম