মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ: কলেজ সভাপতির পদ থেকে বড় মনিরকে বহিষ্কার 

আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০২৪, ২০:৫৩

ঢাকার তুরাগে অস্ত্রের মুখে কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণে অভিযুক্ত টাঙ্গাইলের আওয়ামী লীগ নেতা ও টাঙ্গাইল-২ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোট মনিরের বড় ভাই গোলাম কিবরিয়া ওরফে বড় মনিরকে কলেজ সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 

তিনি ভূঞাপুর উপজেলার লোকমান ফকির মহিলা ডিগ্রি কজেলের সদ্য সভাপতি হিসেবে সম্প্রতি দায়িত্ব পেয়েছিলেন। 

সোমবার (১ এপ্রিল) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে গোলাম কিবরিয়া বড় মনিরকে কলেজের সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের পরিচালক মো. আতাউর রহমানের স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বড় মনিরকে বহিষ্কার করে সেখানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। চিঠিতে বলা হয়, এডহক কমিটির মেয়াদ হবে ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। 

জানা গেছে, গোলাম কিবরিয়া বড় মনির টাঙ্গাইল শহর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এবং জেলা বাস কোচ-মিনিবাস মালিক সমিতির মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সংসদ সদস্যের ভাই হওয়ার দাপটে তিনি ভূঞাপুর ও গোপালপুরে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ঢাকায় ধর্ষণের ঘটনার পরদিন থেকেই তিনি পলাতক রয়েছেন। 

এর আগে টাঙ্গাইলেও এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে। সেই মামলায় উচ্চ আদালত থেকে তিনি জামিনে আছেন। 

কলেজ সভাপতি হিসেবে নিয়োগের দুই সপ্তাহ পর গত ২৯ মার্চ তুরাগ থানার প্রিয়াঙ্কা সিটি আবাসিক এলাকায় বড় মনিরের ফ্ল্যাট থেকে এক কলেজছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। তাকে অস্ত্রের মুখে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয় বলে মামলায় বড় মনিরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে ওই কলেজছাত্রী।

ওইদিন রাতে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বর থেকে আসা একটি ফোন কলের সূত্র ধরে বড় মনিরের ফ্ল্যাট থেকে কলেজছাত্রীকে উদ্ধার করে পুলিশ। তবে রাতেই ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান বড় মনির। পরে তার বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ মামলা হয়েছে। 

সোমবার (১ এপ্রিল) ভূঞাপুর লোকমান ফকির মহিলা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম রব্বানী রতন জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে দেখেছি। তবে এখনও কোন চিঠি পাইনি। এর আগে তিনি তার ভাই সংসদ সদস্য ছোট মনিরের ডিও লেটারের মাধ্যমে সভাপতি হয়েছিল। 

ইত্তেফাক/পিও