সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

মোটরসাইকেলের ইঞ্জিন বাক্সে মিললো ৫ হাজার ইয়াবা

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৫৪

মোটরসাইকেলযোগে চট্টগ্রাম যাওয়ার সময় ইঞ্জিন বাক্সে লুকিয়ে পরিবহণ করা ৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ এক যুবককে আটক করে চকরিয়া থানা পুলিশ। রবিবার (১৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা কক্সবাজার-পেকুয়া-চট্টগ্রাম সড়কের চকরিয়া পৌরসভাস্থ বাটাখালী ব্রীজের উপর অভিযান চালিয়ে এসব ইয়াবা জব্দ করা হয়। 

চকরিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী এসব তথ্য নিশ্চত করেন। গ্রেপ্তার মোহাম্মদ করিম (২৪) কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা জাদিমুড়া ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত আলী আহম্মদের ছেলে।

ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী জানান, রবিবার বিকাল ৫টার দিকে খবর আসে এক ব্যক্তি মোটরসাইকেলে লুকিয়ে ইয়াবা পাচার করছে। এমন সংবাদে সহকারী পুলিশ সুপার (চকরিয়া সার্কেল)'র দিক নির্দেশনায় আমার (ওসির) নেতৃত্বে চকরিয়া পৌরসভার বাটাখালী ব্রীজের উপর চেকপোষ্ট বসানো হয়।

সন্ধ্যা ৬টার দিকে একটি নীল রংয়ের অ্যাপাসি আরটিআর  মোটরসাইকেল যোগে এক যুবক চেকপোষ্ট এলাকায় এলে তাকে থামার সিগন্যাল দেয়া হয়। আরোহী মোটর সাইকেল থামিয়ে গাড়ি থেকে নেমে দ্রুত পালানোর চেষ্টা করে। তখন তাকে আটক করে পালানোর কারণ জানতে চাওয়া হয়। 

উপস্থিত লোকজনের সম্মুখে আরোহী করিম জানায়, তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেলের ইঞ্জিন কভারের ভিতর বিশেষ কায়দায় রক্ষিত অবস্থায় ইয়াবা ট্যাবলেট আছে। পরবর্তীতে করিম নিজেই মোটর সাইকেলোর ইঞ্জিন কভারের ভিতর হতে কালো স্কচটেপ দ্বারা মোড়ানো ২৪টি নীল রংয়ের পলিজিপার প্যাকেট বের করে দেন। এতে প্রতিটি প্যাকেট ২০০ পিস করে মোট ৪ হাজার ৮০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওযায়। সে মতে জব্দ তালিকা করে এসআই মো. মেহেদী হাসান তাকে থানায় নিয়ে আসেন। 

ওসি আরও বলেন, গ্রেফতারকৃত করিম জিজ্ঞাসাবাদে জানায়- তিনি টেকনাফ থেকে পেকুয়ার মগনামা এলাকায় ৪ হাজার ৮০০ পিস নিষিদ্ধ ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রির জন্য নিয়ে যাচ্ছিল। এর আগেও একাধিক চালান নিরাপদে সরবরাহ দিয়েছেন। এ ঘটনায়  তার বিরুদ্ধে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন বলে উল্লেখ করেন ওসি।

ইত্তেফাক/এনএন